আবারও আন্দোলনে নামছে বিমান ক্যাজুয়াল শ্রমিকরা !

আবারও আন্দোলনে যেতে পারে বিমান ক্যাজুয়াল শ্রমিকরা। চাকুরী স্থায়ী করণের দাবীতে দীর্ঘ দিন থেকে আন্দোলন করে আসছে বিমান ক্যাজুয়াল শ্রমিক(পে গ্রুপ ১) এর সদস্যরা।বিমান পরিচালনা পর্ষদে ক্যাজুয়াল শ্রমিকদের স্থায়ীকরণের সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়।কিন্তু নতুন করে শ্রমিকদের ভিতর উৎকণ্ঠা ও ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। সর্বনিম্ন ১২ বছর মেয়াদ ধরে চাকরী স্থায়ী করা হচ্ছে এমন সংবাদে শ্রমিকদের ভিতর নতুন করে উৎকণ্ঠা ও ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।

ক্যাজুয়াল শ্রমিক নেতৃবৃন্দ জানান, সর্বনিম্ন ৫ বছর মেয়াদ ধরে চাকরী স্থায়ী করার কথা ছিল কিন্তু এখন শোনা যাচ্ছে তা ১২ বছর করা হচ্ছে। যদি এমন কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয় তাহলে ক্যাজুয়াল শ্রমিকদের ভিতর ক্ষোভ সৃষ্টি হবে এবং আবারও আন্দোলন ও ঘেরাও কর্মসূচিতে যেতে বাধ্য হবে ক্যাজুয়াল শ্রমিকরা।

উল্লেখ্য, ২৩ অক্টোবর বিমানের ক্যাজুয়াল শ্রমিকদের স্থায়ীকরণের সিদ্ধান্ত নেয় বিমান পরিচালনা পর্ষদ। রাত সাড়ে ৮টায় শেষ হয় পরিচালনা পর্ষদ সভা।বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গিয়েছিলো, পর্ষদ সভায় সব ক্যাজুয়াল শ্রমিকের চাকরি স্থায়ীকরণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।স্থায়ী শ্রমিকদের কী ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হবে সেজন্য তিন সদস্যের একটি সাব কমিটিও গঠন করা হয়।

এর আগে চাকরি স্থায়ী করার দাবিতে গত ৩০ সেপ্টেম্বর কর্মবিরতি পালন ও বিমানের প্রধান কার্যালয় বলাকা ঘেরাও করেন বিমানের ক্যাজুয়াল শ্রমিকরা। সেদিন প্রায় দেড় হাজার ক্যাজুয়াল শ্রমিক বিমান ও বিমানবন্দরের কাজ ফেলে বিমান কার্যালয় ঘেরাও করেছিলেন। ক্যাজুয়ালদের এই অান্দোলনের সঙ্গে বিমান শ্রমিক লীগ সভাপতি মসিকুর রহমানের নেতৃত্বে শ্রমিক লীগ একাত্মতা প্রকাশ করে।

ওইদিন বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও এ এম মোসাদ্দিক আহমেদের আশ্বাসের পর তারা কাজে ফিরে যান। বিমানের এমডি বিষয়টি বোর্ডসভায় উপস্থাপন করে চাকরি স্থায়ীকরণ চূড়ান্ত করবেন বলে শ্রমিকদের আশ্বাস দিলে তারা আন্দোলন স্থগিত করেন।

আরও খবর
Loading...