আমিরাতের নাগরিকরা বিনা খরচে দেশে ফিরবেন এমিরেটস এয়ারলাইন্সে

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বের নানা প্রান্তে আটকে যাওয়া আরব আমিরাতের নাগরিকদের ফিরিয়ে আনতে বিনামূল্যে ফ্লাইট ঘোষণা করেছে দেশটির সরকার।

সংযুক্ত আরব আমিরাত এয়ারলাইন্স গ্রুপের সভাপতি ও প্রধান নির্বাহী শেখ আহমেদ শুক্রবার বিনামূল্যে ফ্লাইট সম্পর্কে টুইটারে লিখেছেন, কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়া রোধে ফ্লাইট স্থগিত করা হয়েছিল। ফলে বিভিন্ন দেশে থাকা আমিরাতের নাগরিকরা দেশে ফিরতে পারেনি। তাই আগামী সপ্তাহ থেকে বিনামূল্যে বিশেষ বিমান ফ্লাইট ঘোষণা করা হয়েছে।

পরের সপ্তাহে দুবাই থেকে সীমিত যাত্রীবাহী সেবা শুরু হওয়ার সাথে সাথে আমিরাত ফ্লাইটে সংযুক্ত দেশটির নাগরিকদের বাড়িতে বিনা খরচে পৌঁছে দেবে। সহায়তার জন্য তাদের নিকটতম সংযুক্ত আরব আমিরাত দূতাবাসে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

আমিরাতে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ২৪১ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫০৫ জনে। এ ছাড়া মারা গেছেন এজজন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৭ জন।

শনিবার (০৪ এপ্রিল) দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই তথ্য জানানো হয়। মৃত্যুবরণ করেছেন আগের নয়জনসহ মোট দশজন। আর নতুন ১৭ জনসহ ১২৫ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

মধ্যপ্রাচ্য তথা এশিয়ায় মহামারি করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে ইরানে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত আরও ১৫৮ জনের মৃত্যুর পর সংখ্যাটা এখন ৩ হাজার ৪৫২।

মহামারি করোনাভাইরাসে মোট মৃত্যুর অর্ধেকেরও বেশি ইউরোপে। যুক্তরাষ্ট্রে ২ লাখ ৪০ হাজারের মতো মানুষ করোনায় মারা যেতে পারে বলে শঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। চীনে প্রাদুর্ভাব শুরু হলেও করোনার কেন্দ্র এখন ইউরোপ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, এরপরের কেন্দ্র যুক্তরাষ্ট্র।

আক্রান্তদের মধ্যে ৪ হাজার ১০৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে যে ৮০ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন তার বেশিরভাগই ইরানে। তবে দেশটির বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগও রয়েছে।

শুধু মধ্যপ্রাচ্য নয় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত দেশগুলোর একটি ইরান। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রীসহ স্পিকার, ভাইস প্রেসিডেন্ট, ধর্মীয় নেতা ও আইনপ্রণেতা ছাড়াও অনেক হাই প্রোফাইল নেতা প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

আরও খবর
Loading...