আশার মধ্যেই ‘বোমাবৃষ্টি’

1f0eb4f6ca9b71520cdad95b9ebec530-3সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে সমঝোতার ঘোষণা আসার পর অনেকের ধারণা ছিল সেখানে পাল্টাপাল্টি হামলার মাত্রা কমে আসবে। কিন্তু শুক্রবার এই ঘোষণা আসার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সেখানে ব্যাপক বিমান হামলা চালানো হয়।
বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত কয়েকটি এলাকায় সরকারি বাহিনী বিমান থেকে ব্যাপক হারে বোমা বর্ষণ করেছে। এতে অন্তত ১০০ জন নিহত হয়েছে।
ইদলিব শহরের একটি বাজারে বিমান হামলায় প্রায় ৬০ জন নিহত হয়। আরেকটি হামলায় আলেপ্পোয় কমপক্ষে ৪৫ জন প্রাণ হারায়। সিরিয়ার সরকারবিরোধী সংগঠনগুলোর কর্মীরা এসব তথ্য দিয়েছেন।
মার্কিন-রুশ পরিকল্পনা অনুযায়ী আজ সোমবার থেকে ১০ দিনের যুদ্ধবিরতি শুরু এবং এরপর ইসলামপন্থী জঙ্গিদের ওপর সমন্বিত বিমান হামলা শুরু হওয়ার কথা। তুরস্ক ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) এ পরিকল্পনাকে স্বাগত জানালেও তারা আরও পদক্ষেপ প্রয়োজন বলে সতর্ক করে দিয়েছে।
তুরস্ক বলেছে, যুদ্ধবিরতি শুরুর সঙ্গে সঙ্গেই ত্রাণ বিতরণ করতে হবে। আর ইইউর পররাষ্ট্র নীতিবিষয়ক প্রধান ফেদেরিকা মগেরিনি একটি ‘রাজনৈতিক পরিবর্তনের’ পক্ষে বলেছেন। আর সিরিয়ার সরকারবিরোধী পক্ষের একজন মুখপাত্র বলেছেন, অস্ত্রবিরতির পরিকল্পনা শুনে তাঁরা কিছুটা আশাবাদী হয়েছিলেন। তবে এটা কীভাবে কার্যকর হবে, সে বিষয়ে আরও বিশদ জানা দরকার।
সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে সরকার ওই যুদ্ধবিরতি অনুমোদন করেছে। রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সানা এ খবর জানিয়েছে। ইরান এ বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি। মস্কোর মতো তেহরানও সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের একজন মিত্র হিসেবে পরিচিত।
প্রেসিডেন্ট বাশারের বিরুদ্ধে গণবিক্ষোভের মধ্য দিয়ে সিরিয়ায় লড়াই শুরু হয়। পাঁচ বছর ধরে এ যুদ্ধে অন্তত আড়াই লাখ মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে আরও লাখো মানুষ। তাদের অনেকেই ইইউতে আশ্রয় চায়। তবে প্রায় ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ সিরিয়ায় রয়ে গেছে। সরকারি বাহিনী ও বিদ্রোহী যোদ্ধাদের লড়াইয়ের মাঝখানে পড়ে তাঁদের অবস্থা নাজেহাল।
ইদলিবের একটি সবজির বাজারে যখন বিমান হামলা হয়, ৬০ জন নিহত হওয়ার পাশাপাশি তখন আহত হয়েছে প্রায় ৯০ জন। সিরিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর আলেপ্পোর কাছাকাছি আনাদান ও রেইতান এলাকায়ও শনিবার বিমান হামলা হয়েছে।
আসন্ন যুদ্ধবিরতি নিয়ে সংশয় রয়েছে অনেক। কারণ সিরিয়ায় এক সপ্তাহের যুদ্ধবিরতি হয়তো সম্ভব, কিন্তু যুদ্ধের ইতি টানতে একটি রাজনৈতিক সমঝোতার সম্ভাবনা এখনো কম। আজ সোমবার সূর্যাস্তের পরপরই যুদ্ধবিরতি শুরু হবে। একই দিনে ঈদুল আজহার ছুটিও শুরু হচ্ছে।
যুদ্ধবিরতি পরিকল্পনা অনুযায়ী সিরিয়ার সরকারি বাহিনী বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত সুনির্দিষ্ট কিছু এলাকায় হামলা বন্ধ রাখবে। রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র তখন জঙ্গিদের মোকাবিলায় একটি যৌথ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করবে। এসব জঙ্গি যোদ্ধার মধ্যে ইসলামিক স্টেট (আইএস) ও জাবহাত ফাতেহ আল-শাম রয়েছে। যুদ্ধবিরতি চুক্তিটি স্বাক্ষর হয়েছে সুইজারল্যান্ডের জেনেভায়। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ও রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ এটি সই করেন।

আরও খবর
Loading...