ইতিহাস সৃষ্টি করেছে ইসরাইল-আমিরাতের ফ্লাইট!

ইতিহাস সৃষ্টি করেছে ইসরাইল ও আমিরাতের ফ্লাইট করেছে বলে মন্তব্য করেছেন ইতিহাদ এভিয়েশন গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ মোবারাক ফাদেল আল মাজরুই।
তিনি বলেন, ইসরাইল ও আমিরাতের মধ্যে শক্তিশালী অংশীদারিত্ব গড়তে এই ফ্লাইট ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। নতুন সম্পর্ককে বহুদূর নিয়ে যেতেই মূলত আমাদের এ প্রচেষ্টা। যা দু’দেশের অর্থনৈতিক ভিত্তিকে আরো শক্তিশালী করবে, বিশেষ করে পর্যটন বাণিজের ক্ষেত্রে বেশি গুরুত্ব বহন করছে।
সংযুক্ত আরব আমিরাতের জাতীয় এয়ারলাইন্স ইতিহাদ প্রথমবারের মতো ইসরাইলে সোমবার বাণিজ্যিক যাত্রীবাহী ফ্লাইট পরিচালনা করেছে। মামান গ্রুপের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে ঐতিহাসিক এ ফ্লাইটটি তারা উড়ালো। ইতিহাদের বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার বিমানটি ১৯ অক্টোবর তেল আবিব ত্যাগ করে। সাড়ে তিন ঘণ্টা ভ্রমণ শেষে সেটি আমিরাতে অবতরণ করে। ২১ অক্টোবর আবুধাবি থেকে যাত্রী নিয়ে ইসরাইলে যায় ফ্লাইটটি।
আবুধাবির পর্যটন শিল্পের একটি প্রতিনিধি দল বিমানটিতে ইসরাইল ভ্রমণ করবে। একটি ট্রেড মিশনের অংশ হিসেবে পর্যটন শিল্প নেতারা ফ্লাইটটিতে অংশ নেবেন। ইটিএন নিউজের খবর।
ইসরাইল ও আমিরাতের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন হওয়ার পর থেকে এই প্রথমবারের মতো একটি ফ্লাইট পরিচালিত হল। ওয়াশিংটনে ১৫ সেপ্টেম্বর দু’দেশের মধ্যে আব্রাহাম চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।
ইতিহাদ সূত্র জানিয়েছে, যাত্রীবাহী ফ্লাইট ছাড়াও কার্গো বিমানও পরিবহন করবে ইতিহাদ। মধ্যপ্রাচ্যে ইতিহাদই একমাত্র নন ইসরাইলি কোম্পানি যারা ইসরাইলি মার্কেট ধরতে হিব্রু ভাষায় একটি ওয়েবসাইট চালু করেছে। অবশ্য ওয়েবসাইটটির ইংরেজি ভার্সনও রয়েছে।
আমিরাতের জাতীয় এয়ারলাইন্স হিসেবে ইতিহাদ বিশ্বের শ্রেষ্ঠ এয়ারলাইন্সগুলোর একটি।

আরও খবর
Loading...