ইরাকের উত্তরাঞ্চলীয় কিরকুক প্রদেশে মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে ফের রকেট হামলা।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) রাত আটটা ৪৫ মিনিটের দিকে ইরাকের উত্তরাঞ্চলীয় কিরকুক প্রদেশের একটি সেনা ঘাঁটিতে রকেট হামলা চালানো হয়েছে। ওই ঘাঁটিতে মার্কিন সেনাদের উপস্থিতি রয়েছে।। তাৎক্ষনিকভাবে এ হামলায় হতাহতের সংখ্যা জানা যায়নি। নতুন এই হামলার পর এই অঞ্চলে উত্তেজনা ফিরে আসতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকেই। ইরাকি ও মার্কিন নিরাপত্তা সূত্রের বরাত দিয়ে এই খবর জানিয়েছে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি।

গত বছরের ২৭ ডিসেম্বর এই ঘাঁটিতে হামলার ঘটনা ঘটে । তখন প্রায় ৩০টি রকেট হামলা হয়, এই হামলায় নিহত হয় এক মার্কিন ঠিকাদার। হামলার জন্য ইরানের ঘনিষ্ঠ ইরাকি গোষ্ঠী কাতাইব হিজবুল্লাহকে দায়ী করে ওয়াশিংটন, যুক্তরাষ্ট্র কাতাইব হিজবুল্লাহর অবস্থানে পাল্টা হামলা চালায় এবং নিহত হয় গোষ্ঠীটির প্রায় ২৫ সেনা।

এরও কয়েক দিন পর বাগদাদ বিমানবন্দরে ড্রোন হামলা চালিয়ে ইরানের কুদস ফোর্সের প্রভাবশালী জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও কাতাইব হিজবুল্লাহর সহপ্রতিষ্ঠাতা আবু মাহদি আল মুহান্দিসকে হত্যা করে যুক্তরাষ্ট্র ।

কাসেম সোলাইমানির মৃত্যুতে ইরানে ৪০ দিনের শোক শেষ হওয়ার এর, বৃহস্পতিবার কিরকুকের ঘাঁটিতে আবারও রকেট হামলার ঘটনা ঘটলো। হামলার পরপরই ওই এলাকায় খুব নিচ দিয়ে মার্কিন সামরিক বিমান উড়তে দেখা গেছে।কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ হিসেবে মার্কিন সেনা অবস্থান থাকা ইরাকের দুটি বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। হামলার আগেই সেনাসদস্যদের সতর্ক করায় এতে কেউ নিহত হয়নি বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে সম্প্রতি মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের পক্ষ থেকে স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে যে একশোরও বেশি সেনা মস্তিষ্কে আঘাত পেয়েছে।ওই ঘটনার পর নতুন করে উত্তেজনা তৈরি থেকে বিরত রয়েছে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্র।

গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের শিয়া আইনপ্রণেতারা ইরাকে থাকা পাঁচ হাজার মার্কিন সেনা বহিষ্কারের পক্ষে ভোট দিয়েছেন। বৃহস্পতিবারের হামলা নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন ইরাকের শিয়া আইনপ্রণেতারা। তবে মার্কিন সেনা উপস্থিতি নিয়ে ইরাকি রাজনীতিতে মেরুকরণ ঘটে চলেছে।

আরও খবর
Loading...