NOVOAIR

ইসরাইলের বিমান হামলায় সিরিয়ায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫৭

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে ইসরাইলের বিমান হামলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৭ জন। দেশটির পূর্বাঞ্চলে ইরানপন্থী যোদ্ধাদের অস্ত্রের গুদামসহ বেশ কয়েকটি সামরিক স্থাপনায় ইহুদিবাদী দখলদার ইসরায়েল মঙ্গলবার রাতভর হামলা চালালে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস বুধবার জানিয়েছে, ইসরায়েলি বাহিনী সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় দেইর আজ জর থেকে শুরু করে আল-বুকামাল মরুভূমি পর্যন্ত বিভিন্ন স্থাপনায় অন্তত ১৮বার বিমান হামলা চালিয়েছে।

গত দুই বছরের মধ্যে সিরিয়ায় সবচেয়ে প্রাণঘাতী এ হামলায় ১০ সিরীয় সেনা এবং তাদের মিত্র ৪৭ জন বিদেশি যোদ্ধা নিহত হয়েছেন। নিহত বিদেশিদের জাতীয়তা এখনও নিশ্চিত নয়। এ ঘটনায় আরও ৩৭ জন আহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষক সংস্থাটি।

বার্তা সংস্থা এপি’কে যুক্তরাষ্ট্রের এক জ্যেষ্ঠ গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান, ইসরায়েল মার্কিনিদের দেয়াতথ্যের ভিত্তিতেই সিরিয়ায় এ হামলা চালিয়েছে। হামলার লক্ষ্যবস্তু স্থাপনাগুলোতে ইরানি অস্ত্র মজুত রাখা হতো। ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচিতে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন উপকরণের পাইপলাইন হিসেবেও ওইসব স্থাপনা ব্যবহৃত হতো বলে দাবি করেছেন তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এ মার্কিন কর্মকর্তা জানান, গত সোমবার ওয়াশিংটনের একটি সুপরিচিত রেস্টুরেন্টে বসে ইসরায়েলি গোয়েন্দা বাহিনী মোসাদের প্রধান ইয়োসি কোহেনের সঙ্গে সিরিয়ায় হামলার বিষয়ে আলোচনা করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

হামলার বিষয়ে এখনও কোনও মন্তব্য করেনি ইসরায়েলি বাহিনী। সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সানা হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি তারা।

গত ৭ জানুয়ারি দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে ইসরায়েলি হামলায় প্রাণ হারিয়েছিলেন ইরানপন্থী তিন যোদ্ধা। গত এক সপ্তাহের মধ্যে সিরিয়ায় এটি ইসরায়েলের দ্বিতীয় হামলা।

ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর বার্ষিক প্রতিবেদন অনুসারে, গত বছর সিরিয়ায় অন্তত ৫০টি লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালিয়েছে তারা। ২০১১ সালে সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরুর পর থেকে এপর্যন্ত দেশটিতে কয়েকশ’বার বিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল।

সূত্র: আল জাজিরা

আরও খবর
Loading...