উড়োজাহাজ টানতে গিয়ে নিহত বিমানবন্দর প্রকৌশলী

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলা একটি বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজের ধাক্কায় পিষ্ট হয়ে নিহত হলেন একজন বিমানবন্দর প্রকৌশলী। টারমাকে উড়োজাহাজটিকে টোউ ট্রাক (উড়োজাহাজকে সামনে পেছনের নেয়ার জন্য ব্যবহৃত বিশেষ যানবাহন) দিয়ে টানতে গিয়ে দূর্ঘটনার শিকার হন ঔ প্রকৌশলী।

শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮ টায় থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের ডং মুইয়াং বিমানবন্দরেরে টারমাকে এ দূর্ঘটনা ঘটে।

ডন মুয়াং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হাব ভিত্তিক থাইল্যান্ডের লো-কস্ট বিমানসংস্থা নোক এয়ারের বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজটি (DD6458 ফ্লাইট) নাখন সি থম্মারাতের উদ্দেশ্য উড়ালের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। বিমানবন্দরের প্রকৌশলী থানিসর্ন ওঞ্চা-আমকে একটি টোউ ট্রাক দিয়ে উড়োজাহাজটিকে টেনে বোডিং ব্রিজের গেটে লাগানোর জন্য নিয়ে যাচ্ছিল,যেখান থেকে যাত্রীরা উড়োজাহাজে আরোহন করবেন।

হঠাৎ কিছু বুঝে উঠার আগেই উড়োজাহাজের সংযুক্তকারী টোয়িং ডিভাইসটি শব্দ করে ভেঙ্গে পড়ে। ট্রাকটি এসময় থমকে দাড়ালে গতির কারণে উড়োজাহাজটি সামনে এগিয়ে গিয়ে ট্রাকটিকে চাপা দেয় দেয়। এতে
ট্রাকটির উপরে অংশ দুমড়ে মুচড়ে যায়। পিষ্ট হয় চালকের আসনে বসা থানিসর্ন ওঞ্চা এবং টোউ ট্রাকে থাকা তার সহযােগী এক মেকানিক।

দুজনকেই দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে গেলে গুরুতর আহত থানিসর্ন ওঞ্চাকে মৃত ঘোষণা করে কর্তব্যরত চিকিৎসক, জানিয়েছেন বিমানবন্দরের পরিচালক সাম্ফান খুথারনন।

https://videos.dailymail.co.uk/video/mol/2020/02/07/5918930289776740327/1024x576_MP4_5918930289776740327.mp4?_=1

এই দূঘটনার কারণে নাখন সি থম্মারাতের উদ্দেশ্যে ফ্লাইটটি বিলম্বে ছেড়ে যায়। এমন দূর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, যে ট্রাকটি বিমানবন্দরের টারম্যাকে ১৮৯ আসনের বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজেটিকে টেনে নিয়ে যাচ্ছে। এসময় হঠাৎ, ট্রাকটি একটি থেমে যায়। অপরদিকে পেছনে থাকা হলুদ এবং কমলা রঙের বিমানটি গতি হারিয়ে সামনে এগিয়ে এসে কিছুটা বাম দিকে ঘুরে যায়। এরপর সেটির পাখার পাশের বিশাল অংশ পুরোপুরি ট্রাকটির উপর আছড়ে পড়ে। দেখে মনে হয় যেন ট্রাকটি উড়োজাহাজটির চাপে যেন গলে যাচ্ছে। ট্রাকটিকে মাড়িয়ে উড়োজাহাজটি থামলে বিমানবন্দরের ক্রুরা সেখানে ছুটে আসেন।

দূর্ঘটনার পর উড়োজাহাজটিকে সরিয়ে নেয়া হয়। পরে নতুন আরকেটি উড়োজাহাজ সকাল ৮.৪০ এর ফ্লাইটের স্থলে ছেড়ে যায় সকাল ৯.৫০ এ। উড়োজাহাজটির ক্ষয়ক্ষতি মূল্যায়ন করতে এবং দুর্ঘটনার কারণ বের করতে এরই মধ্যে তদন্ত শুর হয়েছে জোরেশোরে।

নোক এয়ার এক বিবৃতিতে বলেছে, যে তাদের কর্মচারী কীভাবে মারা গিয়েছিল তা নিশ্চিত করার জন্য দূর্ঘটনার রিপোর্টের জন্য অপেক্ষায় আছেন। বিমান সংস্থাটি আরো জানিয়েছে, আক্রান্তদের পরিবারের জন্য সকল ধরনের সহায়তা ও আর্থিক ক্ষতিপূরণ প্রদান করবে তারা।

২০০৪ সালে যাত্রা শুরু করা স্বল্প মূল্যের বিমানসংস্থা নোক এয়ার ২৪ টি উড়োজাহাজের বহর নিয়ে ৩৬ গন্তব্য চলাচল করে। থাইল্যান্ডের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক অভ্যন্তরীণ রুটে পরিষেবা দিচ্ছে এই বিমানসংস্থাটি (২৪ টি রুট)। সংস্থাটি দ্বিতীয় বৃহত্তম অংশের মালিক থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রীয় বিমানসংস্থা থাই এয়ারওয়েজ ।

অন্যদিকে, ডন মুয়াং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ব্যাংকক মেট্রোপলিটন অঞ্চলে বিদ্যমান দুটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের একটি, অন্যটি হল সুবর্ণভূমি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর। ২০০৬ সালে সুবর্ণভূমি খোলার আগে ডন মুয়াং ব্যাংকক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হিসাবে পরিচিত ছিল এবং এটি থাইল্যান্ডের প্রধান বিমানবন্দর ছিল ।

আরও খবর
Loading...