NOVOAIR

করোনাবিধি অমান্য করায় শাহজালালে শাস্তির মুখে দেশি-বিদেশি বিমান

করোনাভাইরাসের নেগেটিভ সনদ ছাড়া যাত্রী পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তাতে মানছে না দেশি-বিদেশি এয়ারলাইন্স।
কেউ বহন করছেন করোনার পজিটিভ যাত্রী, কেউ আবার নেগেটিভ সনদ না নিয়ে ঢাকায় যাত্রী আনছেন।
চলতি মাসে এমন ঘটনায় বাংলাদেশ বিমানসহ ১০টি দেশি-বিদেশি এয়ারলাইন্সকে বিচারের আওতায় আনা হয়েছে।

এদের মধ্যে চারটিকে জরিমানা করা হয়েছে।
লঘু অপরাধের কারণে বাকিদের মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
এসব ঘটনায় এ পর্যন্ত ১৫টি মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিমানবন্দরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ জামিল।

তবে এমন ঘটনায় সুস্থ যাত্রীদের ঝুঁকি বাড়ছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
শাহজালাল বিমানবন্দরে কর্মরত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ বলেন, কঠোর নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও এয়ারলাইন্সগুলো করোনা পজিটিভ ও করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট ছাড়াই যাত্রীদের নিয়ে আসছে।
করোনা পজিটিভ রোগী ফ্লাইটে নিয়ে আসার কারণে অন্যান্য সুস্থরাও করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে পড়ছেন।’

করোনার সংক্রমণ এড়াতে গত ৫ ডিসেম্বর থেকে বাংলাদেশে আসতে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলক করে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।
ফলে দেশি-বিদেশি কোনো এয়ারলাইন্স করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট ছাড়া বাংলাদেশে যাত্রী আনতে পারবে না।
এ নিয়মের ব্যতিক্রম ঘটিয়ে বাংলাদেশে যাত্রী আনতে হলে বিশেষ ছাড়পত্র থাকতে হবে।
কিন্তু বাংলাদেশ বিমানসহ দেশি-বিদেশি বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান যথাযথভাবে এই নিয়ম মানছে না। ফলে গুনতে হচ্ছে জরিমানা।

আরও খবর
Loading...