করোনাভাইরাসে মারা গেলেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি

করোনাভাইরাস আপডেট

আহরার অর্ণব, নিউইয়র্ক থেকে : নিউইয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশিদের আমব্রেলা সংগঠন বাংলাদেশ সোসাইটি ইন্ক-এর সভাপতি কামাল আহমেদ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। স্থানীয় সময় রবিবার ভোর আনুমানিক সাড়ে চারটায় নিউইয়র্কের এলমহামর্স্ট হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্নাইলাইহি রাজিউন)।

বাংলাদেশ সোসাইটির সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুর রহিম হাওলাদার এবং কার্যকরি সদস্য মোহাম্মদ সাদী মিন্টু তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। কামাল আহমেদের মৃত্যুতে বাংলাদেশি কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

কামাল আহমেদের ভগ্নিপতি ফারুক চৌধুরীর উদ্ধৃতি দিয়ে বাংলাদেশ সোসাইটির কার্যকরি সদস্য মোহাম্মদ সাদী মিন্টু  জানান, গত ৩০ মার্চ মারাত্মক অসুস্থ অবস্থায় কামাল আহমেদকে নিউইয়র্কের এলমহার্স্ট হপাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষায় করোনাভাইরাস পজিটিভ ধরা পড়ে। এছাড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার একটি কিডনি বিকল হয়ে পড়লে শনিবার বিকালে ডায়ালাইসিস করা হয়। এরমধ্যে শনিবার দিবাগত রাতেই তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন। ভোর সাড়ে চারটায় কামাল আহমেদকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

মোহাম্মদ সাদী মিন্টু জানান, হাসপাতাল থেকে মরদেহ পাওয়া গেলে নিউইয়র্কের লং আাইল্যান্ডের ওয়াশিংটন মেমোরিয়ালে নিজের জন্য কেনা কবরে তাকে দাফন করার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে। কামাল আহমেদ সপরিবারে নিউইয়র্কের এলমহার্স্টে সস্ত্রীক বসবাস করতেন। তিনি এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক ছিলেন।

বাংলাদেশ সোসাইটির সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুর রহিম হাওলাদার জানান, যার পাশে বসে এতদিন সংগঠন করেছি আজ আমার বুকফেটে কান্না আসছে। কামাল ভাইকে হারিয়ে আমরা যে ক্ষতির সম্মুখীন হলাম তা কখনো পুরণ হবে না। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সোসাইটিসহ পুরা বাংলাদেশি কমিউনিটি আজ অবিভাবকহীন হয়ে গেলাম।

নিউইয়র্কে মূলধারার রাজনীতিক ও জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির সভাপতি ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার কান্নাজড়িত কণ্ঠে এ প্রতিবেদককে জানান, আল্লাহ এমন মৃত্যু যেন কাউকে না দেন। স্বাভাবিক মৃত্যু হলে যেখানে হাজার হাজার মানুষ তার জানাযায় অংশ নিতেন। অথচ করোনাভাইরাসে মৃত্যুর কারণে পরিবার-পরিজন এবং কমিউনিটির কেউই তার জানাযা ও দাফনে অংশ নিতে পারবে না। এর চেয়ে বেদনাদায়ক আর কী হতে পারে? বাংলাদেশি কমিউনিটিকে সতর্ক করে ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার বলেন, ‘দয়াকরে আপনারা বাড়িতে নিরাপদে থাকুন।’

বাংলাদেশ সোসাইটির প্রচার ও গণসংযোগ সম্পাদক রিজু মোহাম্মদ জানান, কামাল আহমেদের গ্রামের বাড়ি সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলায়। দীর্ঘ প্রায় ৪০ বছর ধরে নিউইয়র্কে মানবসেবায় নিজের সকল স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে প্রবাসীদের কাছে হয়ে উঠেছেন ‘কামাল ভাই’। নিউইয়র্কের বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সম্পৃক্ত থেকে প্রবাসীদের দাবি আদায়সহ সবসময় তাদের পাশে থেকে প্রবাসীদের কল্যাণে কাজ করেছেন তিনি।

কামাল আহমেদ দ্বিতীয়বার বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতির দাযিত্ব পালন করছেন। এর আগে তিনি প্রবাসে বৃহত্তর সিলেটবাসীর সংগঠন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন এবং বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতির একাধিকবার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস নিউইয়র্ক প্রবাসী বাংলাদেশি অনেকেরই মৃত্যুর খবর এখন নিত্যদিনের। প্রতি মুহূর্তেই আসছে মৃত্যুর খবর। এ পর্যন্ত নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ৬০ জন বাংলাদেশি মারা গেছেন। আক্রান্তের কোনো হিসাব নেই। বাংলাদেশি অনেক পরিবারেই করোনা আক্রান্তের খবর পাওয়া যাচ্ছে।

আরও খবর
Loading...