কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা, বিপাকে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ

কর্মী ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনার ঘোষণা দিয়ে ব্রিটিশ আইনপ্রণেতাদের তোপের মুখে পড়েছে যুক্তরাজ্যের ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ।
কোম্পানিটি যদি শেষ পর্যন্ত কর্মী ছাঁটাই করে, তবে তাদের জন্য ল্যান্ডিং স্লট বরাদ্দ রাখার বিষয়টি নতুন করে

ভাবতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ওপর চাপ দিচ্ছেন আইনপ্রণেতারা। ডেইলি মেইলের একটি প্রতিবেদনে

এমনটি জানানো হয়েছে। খবর ব্লুমবার্গ।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্রিটেনের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের শতাধিক আইনপ্রণেতা হিথ্রোসহ যুক্তরাজ্যের

বিভিন্ন বিমানবন্দরে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজকে ল্যান্ডিং স্লট দেয়ার বিষয়টি নতুন করে বিবেচনা করতে বলেছেন।

এমন এক সময়ে প্রধানমন্ত্রীর ওপর এ রাজনৈতিক চাপ আসছে, যখন ব্যয়সংকোচনের জন্য ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ

প্রায় ২৮ শতাংশ কর্মী ছাঁটাইয়ের কথা ভাবছে। ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনস গ্রুপ পরিচালিত আকাশসেবা সংস্থাটির

মোট কর্মী সংখ্যা ৪২ হাজার। সে হিসাবে কোম্পানিটির ১২ হাজার কর্মী চাকরি হারাতে চলেছেন।

হিথ্রো বিমানবন্দরের অর্ধেকের বেশি স্লট এখন ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এই স্লটের মাধ্যমে কোম্পানিটি একটি নির্দিষ্ট সময়ে কোনো উড়োজাহাজ উড্ডয়ন বা অবতরণ করবে, তা নিয়ন্ত্রণ করে। এ স্লটের আর্থিক মূল্য অনেক। যেমন পিক টাইমে একেকটি স্লটের মূল্য কয়েক মিলিয়ন হতে পারে।

ব্রিটিশ ও আইরিশ ট্রেড ইউনিয়ন ইউনাইট দ্য ইউনিয়ন ও পার্লামেন্ট সদস্যরা প্রদানমন্ত্রী বরিস জনসনকে বলেছেন, ব্রিটিশ এয়ারওয়েজকে স্লট বরাদ্দ তখনই অব্যাহত রাখা যেতে পারে, যখন তারা এটা বোঝাতে সমর্থ হবে যে তারা সামাজিক দায়বদ্ধতা মেটাতে পারছে এবং স্লট থেকে পাওয়া অর্থ কোম্পানি পরিচালনাতেই বিনিয়োগ করছে।

এদিকে এক বিবৃতিতে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘আমরা যত বেশি সম্ভব চাকরি বাঁচানোর চেষ্টা করছি। আমরা বিভিন্ন ট্রেড ইউনিয়নের কাছে আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনার প্রস্তাব পাঠিয়েছি।’

আরও খবর
Loading...