গাইবান্ধার বিতর্কিত পিআই নুরুন্নবী সরকারকে সন্দ্বীপ বদলীর খবরে জনমনে অসন্তোষ।

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বিতর্কিত ও দুর্নীতি, লুটপাট সহ নানা অনিয়মের অভিযোগে অভিযুক্ত প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) নুরুন্নবী সরকারকে সন্দ্বীপে বদলির আদেশ বহাল রাখায় জনমনে অসন্তোষ শুরু হয়েছে।অফিস পাড়ায় শুরু হয়েছে নানা গুন্জন।

কিছু দিন পুর্বে সংশ্লিষ্ট্য অধিদপ্তর দুর্নীতির অভিযোগে তাকে সন্দ্বীপ বদলী করলে সে বদলির আদেশ চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করে। তার করা রিট স্থগিত রেখে অধিদফতরের বদলির আদেশ বহাল রাখেন সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার আদালত। এতে বদলি করা কর্মস্থল সন্দ্বীপে যোগদান করতে হবে নুরুন্নবী সরকারকে এটা নিশ্চিত জেনে, সন্দ্বীপের জনমনে এ অসন্তোষ ও জল্পনা কল্পনা।কয়েকটি পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের মাধ্যমে সন্দ্বীপ বাসী জানতে পারে গত ২৪ ফেব্রুয়ারী সোমবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার আদালত এ আদেশ দেন। গত ৫ জানুয়ারি নুরুন্নবী সরকারের হাইকোর্টে করা বদলি স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে আপিল আবেদনের প্রেক্ষিতে এ আদেশ দেয়া হয়। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে আপিল আবেদনের শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী বলেন, পিআইও নুরুন্নবীর বদলিতে হাইকোর্টের রিট আদেশ স্থগিত সংক্রান্ত বিষয়টি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির আদালতে শুনানি হয়। শুনানিতে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিত এবং অধিদফতরের বদলির আদেশ বহালের আদেশ দেন আদালত। এর ফলে বদলির আদেশ অনুযায়ী নতুন কর্মস্থল সন্দ্বীপে যোগদান করা ছাড়া অন্য কোনো উপায় থাকবে না নুরুন্নবীর।আর এই খবরে সন্দ্বীপের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বলেন এমন দুর্ণীতিগ্রস্থ অফিসারকে সন্দ্বীপে নিয়োগ প্রদান করে সন্দ্বীপকে অপমানিত করা হচ্ছে এবং সন্দ্বীপ বিচ্ছিন্ন দ্বীপ হওয়ায় এখানে ফলোআপ মনিটরিং এর অভাবে সে আরো বেশী দুর্নীতিগ্রস্থ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এর আগে প্রায় ১২ জন স্বাস্থ্য কর্মীকে দায়িত্বে অবহেলার কারনে সন্দ্বীপে বদলি করার কারনে দুর্নীতিগ্রস্থ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রতিবাদ হয়েছিলো। বার বার দুর্নীতি গ্রস্থদের সন্দ্বীপে বদলী করে সন্দ্বীপকে একটি দুর্নীতিগ্রস্থ কর্মকর্তাদের  আবাসস্থলে পরিনত করার হীন প্রচেষ্টা বলে অনেকে মনে করছেন।

প্রসঙ্গত এই পিআইওর বদলি বহালের খবর গাইবান্ধা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে সন্তোষ প্রকাশ করে মিষ্টি বিতরণ ও আনন্দ মিছিল করে স্থানীয়রা। নুরুন্নবীর দুর্নীতির প্রতিবাদ ও শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ-সমাবেশ, ঝাড়ু মিছিলসহ লাগাতার কর্মসূচি পালন করে স্থানীয় ভুক্তভোগী মানুষ। দুর্নীতিবাজ নুরুন্নবীর বদলির আদেশ কার্যকর ও সুন্দরগঞ্জে একজন দক্ষ পিআইওর পদায়নের দাবি জানায় তারা।

২০১৫ সালে সুন্দরগঞ্জে যোগদানের পর ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগে পাঁচটি মামলা হয় নুরুন্নবীর বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করে একাধিক প্রতিবেদন দাখিল করে দুদকসহ স্থানীয় প্রশাসনের তদন্ত কমিটি। কিন্তু অদৃশ্য কারণে তার বিরুদ্ধে তখন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি মন্ত্রণালয়।

ফলে দুর্নীতিতে বেসামাল নুরুন্নবী ক্ষমতা ও প্রভাব বিস্তার করে বহাল তবিয়তে নানা ঘটনার জন্ম দিয়েছে। পাশাপাশি ১২ জন গণমাধ্যম ও মানবাধিকার কর্মীর বিরুদ্ধে রংপুর আদালতে দুটি মামলা করেছিলেন তিনি।শেষ পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ায় গাইবান্ধাবাসী মিষ্টি বিতরন করলে এ রায়ে নাখোশ সন্দ্বীপের শান্তিপ্রিয় জনগন।

আরও খবর
Loading...