টিকিটের দামে বড় পরিবর্তন আনছে দুই এয়ারলাইন্স

এয়ারলাইন্স ডেস্ক : আবুধাবি থেকে যাত্রাকালে দুটি নতুন এয়ারলাইন্স তাদের ইউরোপের ফ্লাইটের টিকিটের মূল্যে বড় পরিবর্তন করেছে। তারা অন্যান্য এয়ারলাইন্সের তুলনায় ভাড়া একেবারে কমিয়ে দিয়েছে।

এর মধ্যে হাঙ্গেরির বুদাপেস্টভিত্তিক ওয়াইজ এয়ার বলছে, হ্যান্ড লাগেজের বাইরে অন্য কোনোকিছু যাত্রীরা বহন করতে পারবে না। আর এয়ার অ্যারাবিয়া বলছে, টিকিটের দামে দামে তারা বড় পরিবর্তন আনবে।

চলতি মাস শেষে এয়ার অ্যারাবিয়া মিশরে তাদের তৃতীয় গন্তব্য কায়রোতে ফ্লাইট চালু করছে।
এই ফ্লাইটে তারা টিকিটের দামে ব্যাপক রদবদল আনবে। খবর গালফ নিউজের।

ওয়াইজ এয়ার এবং এয়ার আ্যারাবিয়া একটি যৌথ বিনিয়োগের বিষয়ে চুক্তি করেছে। তারা তাদের ওয়েবসাইটে ৩০০ থেকে ৪০০ দিরহাম রেঞ্জের মধ্যে টিকিট ইস্যুর বিষয়ে ঘোষণা দিয়েছে।

যা আবুধাবির সরকারি এয়ারলাইন্সের ব্যয়বহুল আসনের দামের তুলনায় ১০ ভাগের একভাগ। এমনকি ওয়াইজ এয়ার ‘ওয়াইজ প্লাস অ্যান্ড ফ্লেক্স’ নামে আরও একটি ব্যয়বহুল প্যাকেজ করেছে, যেটাতে যাত্রীদের ৩২ কেজি ওজনের লাগেজ অনুমোদন করে অল্প খরচে। অথচ একই রুটে অন্যান্য এয়ারলাইন্সে খরচ আরও বেশি।

আল তায়ের ট্রাভেল জানিয়েছে, ওয়াইজ এয়ারে আবুধাবি থেকে হাঙ্গেরির বুদাপেস্টে ওয়ান ওয়ে টিকিটের খরচ মাত্র ১০৫০ দিরহাম, সেখানে ইতিহাদ কিংবা এমিরেটসে একই টিকিটের দাম যথাক্রমে ৩২৫০ ও ৩০০০ দিরহাম। ওয়াইজ এয়ারে গ্রিসের এথেন্সের ফ্লাইটে আসন ভাড়া ১১০০ দিরহাম, একই গন্তব্যে এমিরেটসের টিকিট ৩০৮০ দিরহাম।

বুলগেরিয়া রাজধানী সোফিয়ার বিমান টিকিটের দাম ওয়াইজ এয়ার নিচ্ছে মাত্র ৮৫০ দিরহাম। জেএলএস কনসাল্টিংয়ের ডিরেক্টর জন স্ট্রিক্টলার বলছেন, ওয়াইজ এয়ার তাদের ভাড়ায় ডাইনামিক পরিবর্তন এনেছে। তাদের টার্গেট মূলত তরুণ পর্যটক।

আরও খবর
Loading...