দর্শনার্থীদের ফেলে যাওয়া ময়লা ডাকযোগে ফেরত পাঠাচ্ছে থাইল্যান্ড

অনেকেই প্রকৃতির সান্নিধ্যে গিয়ে ঘুরতে গিয়ে ময়লা-আবর্জনা ফেলে সেখানকার পরিবেশ নষ্ট করে থাকেন। থাইল্যান্ডের ন্যাশনাল পার্কে ঘুরতে গিয়ে এমনটা করলে বাসায় ফিরে হয়তো ফেলে আসা ময়লা আবর্জনা ডাকযোগে ফেরত পেতে পারেন।

থাইল্যান্ডের পরিবেশ বিষয়ক মন্ত্রীর বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, ব্যাংককের নিকটবর্তী জনপ্রিয় খাও ইয়াই জাতীয় উদ্যান কর্তৃপক্ষ শিগগির এভাবে উদ্যানের পরিবেশ বিনষ্টকারীদের বাসায় তাদের ফেলে আসা আবর্জনা পাঠাতে শুরু করবে। অপরাধী হিসেবে তাদের নামও উঠে যাবে পুলিশের খাতায়।

ওই পার্কে আগত দর্শনার্থীদের ঠিকানা দিয়ে নিবন্ধন করতে হবে। যাতে করে তাদের ফেলে যাওয়া আবর্জনা ফেরত পাঠানো সহজ হয়।

এরকম সংগ্রহ করা আবর্জনা পার্সেল করার জন্য প্রস্তুত করে কিছু ছবি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করেছেন দেশটির পরিবেশ মন্ত্রী ভারায়ুত শিল্পা আরচা।

পোস্টে তিনি বলেন, আপনার আবর্জনা আমরা আপনার কাছে ফেরত পাঠাব।

পোস্টটি দর্শনার্থীদেরকে মনে করিয়ে দিয়েছে যে, জাতীয় উদ্যানে আবর্জনা ফেলা একটি অপরাধ এবং এতে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও জরিমানার বিধান আছে।

পরিবেশ মন্ত্রীর ফেসবুক পোস্টের ছবিতে দেখা যায়, খালি প্লাস্টিকের বোতল, ক্যান, চিপসের মোড়ক একটি প্যাকেটে করে পার্সেলের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। প্যাকেটে লেখা আছে  আপনি এই জিনিসগুলি খাও ইয়াই জাতীয় পার্কে ফেলে রেখে গেছেন।

উদ্যান কর্তৃপক্ষ বলছে, ফেলে দেওয়া এসব আবর্জনা উদ্যানের প্রাণীদের জন্যও বিপজ্জনক। তারা এগুলো খাওয়ার চেষ্টা করে।

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের উত্তর পূর্বে অবস্থিত দুই হাজার বর্গ কিলোমিটার আয়তনের খাও ইয়াই দর্শনার্থীদের কাছে খুবই জনপ্রিয়।

এটি থাইল্যান্ডের প্রাচীনতম জাতীয় উদ্যান এবং জলপ্রপাত, প্রাণী ছাড়াও এর প্রাকৃতিক দৃশ্য খুবই মনোরম।

আরও খবর
Loading...