পর্যটনের প্রসারে স্থানীয় ঐতিহ্য সংরক্ষণ করতে হবে

পর্যটনের প্রসারের স্বার্থেই স্থানীয় ঐতিহ্য সংরক্ষণ করতে হবে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

তিনি বলেন, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যুগ যুগ ধরে চলে আসা নৌকাবাইচ, কুস্তি প্রতিযোগিতা, লাঠি খেলা, ষাঁড়ের লড়াই ইত্যাদি ঐতিহ্যবাহী নিজস্ব সংস্কৃতির সংরক্ষণ এবং উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে। এর সঙ্গে জড়িত জনসম্পদের উন্নয়নে কাজ করতে হবে।

স্থানীয় উন্নয়ন পরিকল্পনায় পর্যটনকে সম্পৃক্তকরণ ও পর্যটন সম্পর্কে জনসচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড কর্তৃক শেরপুর জেলার সঙ্গে আয়োজিত অনলাইন কর্মশালায় এ কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, স্থানীয় লোকজ সংস্কৃতি এবং বিভিন্ন অঞ্চলে বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নিজস্ব সংস্কৃতি, ভাষা ও জীবনযাত্রা পর্যটনের অন্যতম আকর্ষণ। স্থানীয় প্রশাসনকে এ বিষয়গুলো সংরক্ষণ এবং উন্নয়নে কাজ করতে হবে। এই বর্ণিল জীবনাচরণ দেশী-বিদেশি পর্যটকদের কাছে তুলে ধরতে প্রয়োজনীয় প্রচারের ব্যবস্থা করতে হবে।

মাহবুব আলী বলেন, পর্যটনের উন্নয়ন নিশ্চিতের জন্য স্থানীয় সব পর্যটন অংশীদারের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। জনগণকে পর্যটন সম্পর্কে উদ্বুদ্ধ করতে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড দেশের ৬৪ জেলায় পর্যায়ক্রমে অনলাইনে কর্মশালার আয়োজন করছে। স্থানীয় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মী ও অন্যান্য অংশীদাররা উদ্বুদ্ধ হলেই কেবল এ আয়োজন সফল হবে।

প্রতিমন্ত্রী শেরপুর জেলার পাহাড়ি এলাকার জীবনযাত্রা ও প্রকৃতি দেশী-বিদেশি পর্যটকদের কাছে তুলে ধরতে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডকে স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় সেখানকার একটি গ্রামে কমিউনিটি ট্যুরিজম চালুর নির্দেশনা দেন। তিনি শেরপুর জেলার ঐতিহ্যবাহী তুলসীমালা ধানের চাষ অব্যাহত রাখাতে এবং এর সঙ্গে সম্পৃক্ত কৃষকদের প্রয়োজনীয় সহায়তার লক্ষ্যে সরকারি প্রণোদনায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য স্থানীয় প্রশাসনকে আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের পরিচালক আবু তাহের মোহাম্মদ জাবের সঞ্চালনায় ও শেরপুর জেলার জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুবের সভাপতিত্বে কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ আহমেদ, শেরপুর জেলার বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মী, বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা ও পর্যটনের সঙ্গে সম্পৃক্ত বিভিন্ন সেক্টরের অংশীজন।

আরও খবর
Loading...