বাধ্যতামূলক করোনা সনদের নির্দেশনা মানছে না দেশী-বিদেশী ৯ এয়ারলাইনস

দুদিনেই সনদবিহীন ৪৩৩ যাত্রী এনেছে

এভিয়েশন নিউজ ডেস্ক :

আকাশপথে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে ৫ ডিসেম্বর থেকে বাধ্যতামূলক হয়েছে করোনা নেগেটিভ সনদ প্রদর্শন। ৩ ডিসেম্বর এ-সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। কিন্তু এ নির্দেশনা মানছে না ফ্লাইট পরিচালনাকারী দেশী-বিদেশী নয় এয়ারলাইনস। এয়ারলাইনসগুলো গত দুদিনেই বিভিন্ন দেশ থেকে সনদবিহীন ৪৩৩ জন যাত্রী এনেছে। এ কারণে এসব যাত্রীকে বিমানবন্দর থেকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

নির্দেশনা অমান্য করা এয়ারলাইনস নয়টি হচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস, এমিরেটস, সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইনস, সালাম এয়ার, কুয়েত এয়ারওয়েজ, এয়ারএশিয়া, এয়ার অ্যারাবিয়া, গালফ এয়ার ও টার্কিশ এয়ারলাইনস। করোনা সনদ ছাড়া যাত্রীদের পরিবহন করায় এরই মধ্যে এয়ারলাইনসগুলোকে সতর্ক করেছে বেবিচক।

এ প্রসঙ্গে বেবিচকের সদস্য (ফ্লাইট স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড রেগুলেশনস) গ্রুপ ক্যাপ্টেন চৌধুরী মো. জিয়াউল কবীর বলেন, সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দেশী-বিদেশী কোনো এয়ারলাইনসই করোনা নেগেটিভ সনদ ছাড়া যাত্রী পরিবহন করতে পারবে না বাংলাদেশে। ৫ ডিসেম্বর থেকে এটি কার্যকর হয়েছে। এর পরও যেসব এয়ারলাইনস এটি মানেনি তাদের সতর্ক করা হয়েছে।

এর আগে গত ৩ ডিসেম্বর বেবিচকের ফ্লাইট স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড রেগুলেশনস এ-সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করে। বেবিচকের সদস্য (ফ্লাইট স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড রেগুলেশনস) গ্রুপ ক্যাপ্টেন চৌধুরী মো. জিয়াউল কবীর স্বাক্ষরিত ওই নির্দেশনায় বলা হয়, আকাশপথে বাংলাদেশ আসতে হলে সব যাত্রীকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষা করতে হবে। কেবল কভিড-১৯ নেগেটিভ হওয়া যাত্রীরা আসতে পারবেন। করোনা নেগেটিভ হওয়ার সেই সনদ বিমানবন্দরে দেখাতে হবে। একই সঙ্গে বিমানবন্দরেও যাত্রীর লক্ষণ উগসর্গ আছে কি না অনুসন্ধান করা হবে। কোনো যাত্রীর উপসর্গ দেখা গেলে করোনা নেগেটিভ সনদ থাকলেও তাকে সরাসরি নির্ধারিত হাসপতালে আবার পরীক্ষা, চিকিৎসা ও আইসোলেশন সেন্টারে পাঠানো হবে। তবে কোনো যাত্রীর মধ্যে উপসর্গ দেখা না গেলে তাকে নিজ বাড়িতে গিয়ে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। বাংলাদেশী শ্রমিক যাদের বিএমইটি কার্ড আছে, তারা যে দেশ থেকে আসবেন সে দেশে পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা সহজলভ্য না হলে অ্যান্টিজেন বা অন্য কোনো গ্রহণযোগ্য পরীক্ষার সনদ নিয়ে দেশে আসতে পারবেন। বাহরাইন, চীন, সৌদি আরব, কুয়েত, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, ওমান, কাতার, শ্রীলংকা, সিঙ্গাপুর, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও যুক্তরাজ্যে চলাচল করা ফ্লাইটের ক্ষেত্রে করোনা মহামারীর মধ্যে এ নির্দেশনা কার্যকর হবে ৫ ডিসেম্বর থেকে।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে থেকে ইউরোপ ও আমেরিকাসহ অন্যান্য গন্তব্যে সরাসরি ফ্লাইট নেই। সিঙ্গাপুর, তুরস্ক, দুবাই, আবুধাবি, মালয়েশিয়া, যুক্তরাজ্যে ট্রানজিট নিয়ে যাত্রীরা এসব গন্তব্যে যাওয়া আসা করেন। ফলে ইউরোপ ও আমেরিকাসহ অন্যান্য গন্তব্যে চলাচল করা ফ্লাইটের ক্ষেত্রেও এ নির্দেশনা কার্যকর হয়েছে।

আরও খবর
Loading...