বিমানের বুকিং শুরু হল, তবে টিকিট কাটার আগে ভেবে নেওয়া দরকার

করোনা ভাইরাস সঙ্ক্রমন প্রতিরোধে ভারত জুড়ে ৩১ মে পর্যন্ত চলবে লকডাউনের চতুর্থ দফা। আর এর পরেই উড়ানের অনুমতি মিলে যেতে পারে। এমন আশায় অনেক বেসরকারি বিমান সংস্থাই জুন মাসের টিকিট বুকিং শুরু করে দিয়েছে। সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, এখন থেকেই দেশের মধ্যে সফরের টিকিট বুকিং শুরু করে দিয়েছে ইন্ডিগো এবং ভিস্তারা।

দেশে ২৫ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে সব রকমের উড়ান। দফায় দফায় লকডাউন বাড়ায় একাধিক বার টিকিট বুকিং শুরু করেও শেষে তা বাতিল করেছে বিভিন্ন সংস্থা। ৩১ মে লকডাউন উঠে গেলে দেশের মধ্যে বিমান চলাচল স্বাভাবিক হবে এমন আশা করেই এখন থেকে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ওই বিমানসংস্থাগুলি টিকিট বিক্রি শুরু করেছে বলে দাবি করেছে পিটিআই। তবে কোনও সংস্থাই সরকারি ভাবে এই ব্যাপারে কিছু জানায়নি। তবে স্পাইসজেটের এক মুখপাত্র সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন, “১৫ জুন পর্যন্ত সব আন্তর্জাতিক বিমানের টিক‌িট বুকিং বন্ধ আছে।”

কিছু বেসরিকারি বিমানসংস্থা এখন থেকেই টিকিট বুকিং শুরু করলেও সরকারি সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়ার বুকিং এখনও বন্ধ রয়েছে। এয়ার ইন্ডিয়া আগেই জানিয়েছে, অসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রকের নির্দেশ আসার আগে তারা বুকিং নেবে না। কিন্তু অন্য সংস্থা টিকিট বুকিং শুরু করলেও যাত্রীদের এ ব্যাপারে সতর্ক থাকা উচিত বলে জানিয়েছে, এয়ার প্যাসেঞ্জার অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া (এপিএআই)। সংগঠনের সর্বভারতীয় সভাপতি সুধাকর রেড্ডি বলেন, অনেক সংস্থাই জুন থেকে উড়ান চালু হওয়ার আশা করছে। তবে টাকা খরচ করার আগে যাত্রীদের সতর্ক থাকা দরকার।

উল্লেখ্য, লকডাউনের মধ্যেই এর আগেও টিকিট বিক্রি শুরু করে দেয় বেশ কয়েকটি বিমান সংস্থা। সেই সময়ে অনেক যাত্রী টিকিট কেটেও ফেলেন। কিন্তু পরে উড়ান বাতিল হলে যাত্রীদের ভাড়ার টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করে সংস্থাগুলি। পরে অবশ্য কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশে ভাড়ার টাকা যাত্রীদের ফিরিয়ে দিতে হয়। সেই সময়ে বিমান সংস্থাগুলি বলেছিল, টাকা ফেরত দেওয়া হবে না তবে ওই ভাড়ায় যাত্রীরা পরে সফর করতে পারবেন। কেন্দ্র অবশ্য জানিয়ে দেয়, ২৫ মার্চ থেকে ৩ মে পর্যন্ত বাতিল সব উড়ানের টাকা ফিরিয়ে দিতে হবে। কোনও ক্যানসেলেশন চার্জও নেওয়া যাবে না যাত্রীদের থেকে।

আরও খবর
Loading...