বিমানে আরো জনবল নিয়োগের সিদ্ধান্ত আসছে

চার ধরনের কাজে গুরুত্ব দিয়ে বিমান তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাকে সামনে এগিয়ে নিতে চায়।  বিমানের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার প্রথমেই রয়েছে, স্ট্র্যাটেজিক হিউম্যান ক্যাপিটাল প্ল্যানিং প্রণয়ন। এর মাধ্যমে প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ, বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান, যথাযথ পদায়ন, মূল্যায়ন, প্রণোদনার মাধ্যমে দক্ষ জনসম্পদ গড়ে তুলবে বিমান।

অন্যদিকে আন্তর্জাতিক মানের গ্রাহক চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে গুয়াংজু, টরন্টো, টোকিও, চেন্নাই, কলম্বো, মালে, শারজাহ, সালালাহ, বাহরাইন ও নিউইয়র্ক স্টেশনে বিমানের ফ্লাইট চালু, বিমানের নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ, আন্তর্জাতিক মানের সেবাগুলো তৈরি ও প্রদানের মাধ্যমে লাভের ধারা বজায় রাখতে চায় বিমান।

এছাড়া বিমানের গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিংয়ে ‘আইএসএজিও’ সনদ অর্জন করা, উড়োজাহাজের রক্ষণাবেক্ষণে ‘ এএসএ-১৪৫’ সনদ অর্জন করা; বিমানের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ উড়োজাহাজের রক্ষণাবেক্ষণের জন্য আধুনিক ও সুপরিসর হ্যাঙ্গার নির্মাণ করা; তৃতীয় টার্মিনালের গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং সেবা আন্তর্জাতিক মান অনুযায়ী প্রদানের জন্য বেবিচকের গাইডলাইন অনুসারে বিমানকে প্রস্তুত করাও রয়েছে পরিকল্পনাতে।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে ঢাকা থেকে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে কেবল লন্ডন ও ইউএই রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে বিমান। কভিড-১৯ রোগের প্রাদুর্ভাবে দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকার পর ২১ জুন  ঢাকা লন্ডন রুটে পুনরায় আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করে এ সংস্থা। এছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই ও আবুধাবি রুটে ফ্লাইট চলছে বিমানের।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোকাব্বির হোসেন স্বাক্ষরিত এক চুক্তিতে বলা হয়েছে, চার ধরনের কাজে গুরুত্ব দিয়ে বিমান তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাকে সামনে এগিয়ে নিতে চায়।

আরও খবর
Loading...