বিমান সংস্থাগুলোকে ২৫ বিলিয়ন ডলারের প্রণোদনা প্যাকেজ দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

করোনাভাইরাসের প্রভাবে ফ্লাইট বাতিলসহ বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার কারণে ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্রের ১০টি বিমান কোম্পানিকে ২৫ বিলিয়ন ডলারের প্রণোদনা প্যাকেজ দিচ্ছে দেশটির সরকার। এ সুবিধার আওতায় থাকছে আমেরিকান এয়ারলাইনস্, ইউনাইটেড, ডেল্টা ও সাউদওয়েস্টসহ আরো ৬টি কোম্পানি।

এ প্যাকেজ ব্যবহৃত হবে বিমান কর্মীদের বেতন প্রদানের ক্ষেত্রে। কোম্পানিগুলো স্বল্পসুদে ঋণ আকারে পাবে এসব অর্থ। এর আগে গত মাসে প্রায় ২ ট্রিলিয়ন ডলারের জরুরি ত্রাণ সহায়তার জন্য পরিকল্পনা করে আসছিলো দেশটির সরকারি দল কংগ্রেস। সেসময় বিমান কোম্পানিগুলো তাদের আর্থিক প্রণোদনার গুরুত্বের বিষয়টি তুলে ধরেন। আলোচনায় চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মীদের বেতন ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা না কমানোর শর্তও জুড়ে দেয়া হয় প্রণোদনা প্যাকেজে।

এ বিষয়ে দেশটির সরকারি কোষাগারের সচিব স্টিভেন মনুচিন মঙ্গলবার জানান, কর্মীদের পাশে দাঁড়ানোর এ প্রণোদনা বিমান প্রতিষ্ঠানগুলো টিকিয়ে রাখতে সাহায্য করবে। নিয়মিত কর পরিশোধকারী এসব কোম্পানির জন্য সরকারি এ প্রণোদনা যথোপযুক্ত বলে মনে করি। ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় চুক্তিগুলো যত দ্রুত সম্ভব সম্পন্ন করতে কাজ করে যাচ্ছি।

এ বিষয়ে আমেরিকান এয়ারলাইনসের প্রধান কর্মকর্তা ডাউগ পার্কার বলেন, আশা করছিলাম আমরা ১০ বিলিয়ন ডলার পাব, যার মধ্যে ৫.৮ বিলিয়ন ব্যয় হবে শুধু কর্মীদের বেতনের জন্য। তবে এক্ষেত্রে ৪.১ বিলিয়ন ডলার দিচ্ছে সরকার।

দেশটির শ্রমিক সংঘের সভাপতি সারা নেলসন বলেন, বিমান কর্মীদের পক্ষে নেয়া এ প্রণোদনা সত্যিই অভূতপূর্ব। চলতি বছরের স্টেপ্টেম্বরের মধ্যেই কর্মীরা বিভিন্ন ভাতাসহ মূল বেতন পেয়ে যাবে।

অন্যদিকে, ঋণ খেলাপিদের প্রণোদনা দেয়া হয় কিনা সে বিষয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলো দেশটির রাজনীতিবিদরা। ২০০৮ সালে এমন ঘটনা হয়েছিলো দেশটিতে। সেসময় সরকারের এমন সিদ্ধান্তের কারণে ব্যাপক আর্থিক সঙ্কট তৈরি হয়।

আরও খবর
Loading...