বিশ্বের সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন ২০ এয়ারলাইন্স

বিশ্বের সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন ২০ এয়ারলাইন্স।

ভ্রমণের সময় উড়োজাহাজের আসন কতটা পরিষ্কার ভেবে দেখেছেন? যাত্রীদের সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন আমেজ দেয় কোন এয়ারলাইনসগুলো, নতুন বৈশ্বিক জরিপে বেরিয়ে এসেছে সেই তথ্য। এ তালিকায় এশিয়ার আধিপত্য স্পষ্ট। প্রথম ছয়টি স্থানই এই মহাদেশের বিমান সংস্থাগুলোর দখলে। স্কাইট্র্যাক্স ওয়ার্ল্ড এয়ারলাইন অ্যাওয়ার্ডসে ২০১৮ সালের শীর্ষ ২০ পরিচ্ছন্ন এয়ারলাইনসের মধ্যে ১৪টিই এশিয়ার।

তালিকায় শীর্ষে আছে জাপানের এএনএ অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ। দুই নম্বর স্থান পেয়েছে তাইওয়ানের ইভিএ এয়ার। তিন নম্বরে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার এশিয়ানা এয়ারলাইনস।

জরিপে উড়োজাহাজের কেবিনের মান ও গুণের ক্ষেত্রে যাত্রীদের রেট দেওয়ার আহ্বান জানায় যুক্তরাজ্য ভিত্তিক এভিয়েশন শিল্পের সমালোচক স্কাইট্র্যাক্স। আসন, টেবিল, কার্পেট, কেবিন প্যানেল ও ওয়াশরুমসহ সব বিষয়ে জেনে স্কোর দেওয়া হয়।

চার থেকে দশ নম্বরে আছে যথাক্রমে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস, জাপান এয়ারলাইনস, হংকংয়ের ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারলাইনস, কাতার এয়ারওয়েজ, সুইজারল্যান্ডের সুইস ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনস, চীনের হাইনান এয়ারলাইনস ও জার্মানির লুফথানসা।

সবচেয়ে পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা এয়ারলাইনসগুলোর মধ্যে মহাদেশ অনুযায়ী আফ্রিকায় সাউথ আফ্রিকান এয়ারওয়েজ, অস্ট্রেলিয়া/প্যাসিফিকে এয়ার নিউজিল্যান্ড, উত্তর আমেরিকায় এয়ার কানাডা, দক্ষিণ আমেরিকায় আজুল এয়ারলাইনস ও ইউরোপে সুইস ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনস।

আকাশপথে যাত্রীদের জন্য পরিচ্ছন্নতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বিমানবন্দর ও উড়োজাহাজে ব্যাকটেরিয়ার প্রজননের ভিত্তি হিসেবে দেখা হয়। ২০১৫ সালে আমেরিকার পাঁচটি বিমানবন্দর ও দুটি বৃহৎ বিমান সংস্থার চারটি ফ্লাইটে চালানো ট্রাভেলম্যাথ ডটকমের এক গবেষণায় ধরা পড়ে, বিমানবন্দরে ট্রে টেবিল সবচেয়ে অপরিচ্ছন্ন জায়গা।

এভিয়েশন শিল্পের ‘অস্কার’তুল্য স্বীকৃতি ওয়ার্ল্ড এয়ারলাইন অ্যাওয়ার্ডস ২০০১ সাল থেকে দিচ্ছে স্কাইট্র্যাক্স। গত বছরের ডিসেম্বরে লন্ডনে জমকালো আয়োজনে বর্ষসেরা এয়ারলাইনের পুরস্কার জেতে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস। ২০১৭ সালের বিজয়ী কাতার এয়ারওয়েজ দ্বিতীয় ও এএনএ অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ হয় তৃতীয়।

এএনএ অল নিপ্পন এয়ারওয়েজের কেবিনে দুই বিমানবালাস্কাইট্র্যাক্সের দৃষ্টিতে ২০১৮ সালের শীর্ষ ২০ পরিচ্ছন্ন এয়ারলাইনস
১. এএনএ অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ (জাপান)
২. ইভিএ এয়ার (তাইওয়ান)
৩. এশিয়ানা এয়ারলাইনস (দক্ষিণ কোরিয়া)
৪. সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস (সিঙ্গাপুর)
৫. জাপান এয়ারলাইনস (জাপান)
৬. ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারলাইনস (হংকং)
৭. কাতার এয়ারওয়েজ (কাতার)
৮. সুইস ইন্টারন্যাশনাল এয়ার লাইনস (সুইজারল্যান্ড)
৯. হাইনান এয়ারলাইনস (চীন)
১০. লুফথানসা (জার্মানি)
১১. কোরিয়ান এয়ার (দক্ষিণ কোরিয়া)
১২. ক্যাথে ড্রাগন (হংকং)
১৩. অস্ট্রিয়ান এয়ারলাইনস (অস্ট্রিয়া)
১৪. চায়না এয়ারলাইনস (তাইওয়ান)
১৫. থাই এয়ারওয়েজ (থাইল্যান্ড)
১৬. গারুদা ইন্দোনেশিয়া (ইন্দোনেশিয়া)
১৭. চায়না সাউদার্ন এয়ারলাইনস (চীন)
১৮. ব্যাংকক এয়ারওয়েজ (থাইল্যান্ড)
১৯. এমিরেটস (সংযুক্ত আরব আমিরাত)
২০. এয়ার নিউজিল্যান্ড (নিউজিল্যান্ড)

সূত্র: ডেইলি মেইল, ডেইলি এক্সপ্রেস, সিএনএন

আরও খবর
Loading...