বেসরকারি হাসপাতালে করোনা টেস্ট, আটকে গেলো ৩২ জনের সৌদিযাত্রা

বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে করোনা পরীক্ষার সনদ নিয়ে আসায় ৩২জনকে বোডিং কার্ড দেয়নি সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্স। শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তাদের রেখেই ছেড়ে যায় এসভি ৩৮০৭ ফ্লাইট। হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের একাধিক সূত্রে এ কথ্য জানা গেছে।

কেরানীগঞ্জ থেকে আসা প্রবাসী নূর ইসলামের চাচা আলমগীর বলেন, আমার ভাতিজা নূর ইসলামের করোনা টেস্ট ধানমন্ডি ইবনে সিনা হাসপাতাল করা হয়েছে। সেই নেগেটিভ সনদ নিয়ে বিমানবন্দরে আসছি। কিন্তু আমার ভাতিজাকে বোর্ডিং কার্ড দেয়নি।

প্রবাসী শাহজাহানের স্বজনরা জানিয়েছেন, এনাম মেডিক্যাল সেন্টার থেকে করোনা পরীক্ষা করান শাহজাহান। টিকিট সংগ্রহের সময় বলা হয়নি যে মহাখালী করোনা পরীক্ষা সেন্টার থেকে পরীক্ষা করতে হবে। যার কারণে তারা এনাম মেডিক্যাল সেন্টার থেকে পরীক্ষা করান।

এ বিষয়ে সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে এ যাত্রীদের অন্য ফ্লাইটে যাওয়ার ব্যবস্থা হবে কি না তাও জানানো হয়নি। এদিকে ৩২ জন বিমানবন্দরের ভেতরেই আছেন।

প্রবাসীদের জন্য সরকার মহাখালিতে ডিএনসিসি করোনা স্যাম্পল কালেকশন বুথ চালু করে। এয়ারলাইন্সগুলো জানিয়েছিল, সৌদিগামী যাত্রীদের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে করোনা নেগেটিভ রিপোর্টসহ বিমানবন্দরে আসতে হবে। করোনা টেস্টের জন্য সরকার নির্ধারিত স্থান থেকে করোনা টেস্টের কথাও বলা হয়।

যাত্রীদের কোভিড-১৯ নেগেটিভ টেস্ট ফলাফলের ছয়টি কপি সঙ্গে রাখতে হবে। ৪৮ ঘণ্টার সময় গণনা শুরু হবে নমুনা সংগ্রহের সময় থেকে। যাত্রীদের সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক জারি করা কোভিড-১৯ স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ন্ত্রণ এবং পদক্ষেপগুলো মেনে সৌদি আরবে প্রবেশ করতে হবে।

বিমানে বোর্ডিং এর আগে যাত্রীদের অবশ্যই সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের disclaimer form পূরণ করে স্বাক্ষর করতে হবে। সৌদি বিমানবন্দরে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে বিমানবন্দর স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রে পূরণ ও স্বাক্ষর করা ফর্মটি জমা দিতে হবে। নির্দেশাবলি অমান্য করার ফলে সিভিল এভিয়েশন আইনের ১৬৩ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বড় অঙ্কের জরিমানা আরোপিত হবে।

সুত্র -বাংলা ট্রিবিউন

আরও খবর
Loading...