মেহেদি ছাড়া উৎসব হয়!

প্রতিটি বাঙালি মেয়ের জন্যই ভালো লাগা হাতে মেহেদি পরা। আর ঈদ বা যে কোনো উৎসবের সাজে পূর্ণতা দেয় মেহেদির লাল রং।

ছোট -বড় সব বয়সের মেয়েদের কাছেই হাতে মেহেদি লাগানোর সময় থেকেই শুরু হয় উৎসব। সব কেনাকাটা শেষ, করোনার জন্য এবার পার্লারে যেতে চাইছেন না? 

বেশ তো, চাইলে বাড়িতেও মেহেদি লাগাতে পারেন। মার্কেটেগুলোতে রাঙাপরি, সাজগোল্ড, লিজান, আলমাস, আড়ং, মমতাজ, এলিট, শাহজাদী, লিজানসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মেহেদি পাওয়া যাচ্ছে। এগুলোর দাম ৭০ থেকে ১০০ টাকার মধ্যে। নকশার সুবিধার জন্য প্রত্যেক টিউবের সঙ্গে ছোট নকশা বই থাকে।

একটু ভালো করে খেয়াল করলে ময়ূর, কলকা এবং ফুলেল নকশাসহ প্রায় পার্লারের মতো ডিজাইন ঘরেই করে নিতে পাবরেন।
অনেকের অ্যালার্জির সমস্যা থাকে। বাজারের মেহেদি লাগালে র্যাশসহ নানা উপদ্রব দেখা দেয়। তাই সচেতন থাকতে হবে। বিশেষ করে শিশুদের হাতে মেহেদি লাগাতে নিতে হবে বাড়তি সতর্কতা।

মাত্র ২-৫ মিনিটে রং হয়, এমন চটকদার বিজ্ঞাপনের এই নকল মেহেদি না নিয়ে অবশ্যই ভালো ব্র্যান্ডের আসল মেহেদি ব্যবহার করুন।  রং যেন দ্রুত চলে না যায় কিংবা হালকা না হয়, সেজন্য ঈদের আগে পরে কয়েক দিন সাবান এবং পানি কম ব্যবহার করুন।

ঈদ উৎসবে বাড়তি আনন্দ যোগ করুন মেহেদির রঙে।

আরও খবর
Loading...