সীমিত মুসল্লির অংশগ্রহণে যুক্তরাষ্ট্রে ঈদের নামাজ

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ভীতিকে সাথে করে যুক্তরাষ্ট্রে শুক্রবার পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপন করেছেন বাংলাদেশিসহ অন্যান্য মুসলিম কমিউনিটির সদস্যরা।

বৃষ্টির আশঙ্কায় নিউইয়র্ক শহরে খোলা মাঠে কোন জামাত অনুষ্ঠিত হয়নি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত মুসল্লি নিয়ে প্রতিটি মসজিদে একাধিক ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

নিউইয়র্কে এবার ঈদের জামাতে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে কম সংখ্যক মুসল্লি অংশ নেওয়ার পেছনে করোনাভীতি কাজ করছে বলে মনে করা হচ্ছে। বিভিন্ন মসজিদ কমিটির সাথে কথা বলে জানা গেছে মাত্র ১০ থেকে ১৫ শতাংশ মুসল্লি ঈদের জামাতে যোগ দিয়েছিলেন।

অন্যান্য শহরেও ঈদের জামাতে বাংলাদেশিদের উপস্থিতি লক্ষণীয়ভাবে কম ছিল। করোনাভীতির কারণে ঈদের দিন খুব কম সংখ্যক মানুষই আত্মীয়-স্বজনের বাসায় বেড়াতে গেছেন। সন্ধ্যার দিকে আত্মীয়-পরিজনের বাসার দরজায় কোরবানির মাংস দিয়ে ফিরে এসেছেন।

নিউইয়র্কে জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার, ব্রুকলীনের বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টার, আল আমিন মসজিদ, ইস্ট এলমহার্স্ট মসজিদ, পার্কচেস্টার জামে মসজিদ, গাউসিয়া মসজিদ, ওজনপাক মসজিদ, ব্রঙ্কস মুসলিম সেন্টার, ম্যানহাটানের বায়তুল জান্নাহ মসজিদ, মদিনা মসজিদ ও লং আইল্যান্ড মুসলিম সেন্টারে একাধিক ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

করোনাকালেও অনেকেই বিভিন্ন গ্রোসারির মাধ্যমে গরু বা খাসি কোরবানি দিয়েছেন। আবার কেউ কেউ সরাসরি কোরবানির গরু জবাইতে অংশ নিতে নিউইয়র্ক শহর থেকে একশ মাইল দূরের ফিলাডেলফিয়া শহরেও গেছেন নামাজ শেষ করে।

ক্যালিফোর্নিয়া, পেনসিলভেনিয়া, নিউজার্সি, বস্টন, কানেকটিকাট, ভার্জিনিয়া, ম্যারিল্যান্ড, মিশিগান, ফ্লোরিডা, জর্জিয়া, টেক্সাস, ইলিনয়, মিনেসোটা, ওয়াশিংটন, দেলওয়ারে, ওহাইয়ো, আলাবামা, নিউঅর্লিন্স, ক্যানসাস, কেন্টাকী, ওরেগণ প্রভৃতি স্থানেও ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে।

আরও খবর
Loading...