৪৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে সম্প্রসারণ হচ্ছে রানওয়ে

base_1486893705-Osmani_International_Airportবোয়িং ৭৭৭ মডেলের বিমানসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনার উপযোগী করে গড়ে তুলতে ওসমানী বিমানবন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার ৪৫২ কোটি টাকার এ-সংক্রান্ত একটি প্রকল্প অনুমোদন দেয় জাতীয় অর্থনৈতিক কমিটির নির্বাহী পরিষদ (একনেক)।
এয়ারলাইনস ক্লাব অব সিলেটের সভাপতি খন্দকার শিপার আহমদ বলেন, রানওয়ের অপ্রতুলতার কারণে ওসমানীতে বড় উড়োজাহাজগুলো অবতরণ করতে পারে না। এছাড়া পূর্ণাঙ্গ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যে ধরনের সুবিধা থাকা দরকার, তা এখানে নেই। নতুন যে প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে, তা সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হলে এসব সমস্যা সাধান হবে।
সূত্র জানায়, রানওয়ে সম্প্রসারণকাজ শুরুর আগেই ওসমানী বিমানবন্দর থেকে চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট। আন্তর্জাতিক ঘোষণার প্রায় ১৮ বছর পর আগামী ১৮ মার্চ বিমানবন্দর থেকে ফ্লাই দুবাইয়ের ফ্লাইট চালু হবে।
ফ্লাই দুবাইয়ের সিলেটের স্টেশন ম্যানেজার মাসুম মিয়া বলেন, আগামী ১৮ মার্চ আমরা সিলেট থেকে সরাসরি ফ্লাইট চালুর প্রস্তুতি নিচ্ছি। প্রথম তিন মাস ওসমানী বিমানবন্দর থেকে সপ্তাহে পাঁচদিন দুবাই, কাতার, সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে ফ্লাইট পরিচালিত হবে। তিন মাস পর সপ্তাহে সাতদিনই ফ্লাইট থাকবে।
এর আগে ২০১৫ সালের ১ মে ওসমানী বিমানবন্দরে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট হিসেবে প্রথম অবরতরণ করে ফ্লাই দুবাইয়ের একটি উড়োজাহাজ। কিন্তু গ্রাউন্ড সার্ভিস না পাওয়ায় ওইদিনের পর ওসমানী বিমানবন্দরে আর কোনো বিদেশী উড়োজাহাজ অবতরণ করেনি। তবে এবার সব জটিলতার অবসান ঘটিয়ে ফ্লাইট চালু করা হচ্ছে বলে জানান মাসুম মিয়া। তিনি বলেন, এরই মধ্যে সিভিল এভিয়েশনের ছাড়পত্র পাওয়া গেছে। ফ্লাই দুবাই সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের গ্রাউন্ড সার্ভিস নেবে।
সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা যায়, সিলেট এমএজি ওসমানী অন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ফ্লাইট ‘গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিংয়ে’র অনুমতি রয়েছে। ফ্লাই দুবাই তাদের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে গত বছর ফ্লাইট অপারেট শুরু করে। কিন্তু এতে বেঁকে বসে বিমান কর্তৃপক্ষ। বিমানের কাছ থেকে গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিংয়ের অনুমতি না নেয়ায় বন্ধ হয়ে যায় ফ্লাই দুবাইয়ের ফ্লাইট।
সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সূত্র জানিয়েছে, সিলেট বিমানবন্দর দিয়ে প্রতিদিন ৬০০-৭০০ জন প্রবাসী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যাতায়াত করেন। কোনো বিকল্প না থাকায় বিমানের ফ্লাইটের ওপরই তাদের নির্ভর করতে হয়।
ওসমানী বিমানবন্দরের কর্মকর্তারা জানান, কেবল ফ্লাই দুবাই নয়, এয়ার এরাবিয়া, জেট এয়ারসহ কয়েকটি বিদেশী কোম্পানি সিলেট থেকে সরাসরি ফ্লাইট চালুর প্রক্রিয়া চালাচ্ছে। প্রবাসীবহুল অঞ্চল হওয়ায় সিলেটে আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের যাত্রী রয়েছেন। তাই বিদেশী এয়ারওয়েজ প্রতিষ্ঠানগুলো সিলেটে আসতে আগ্রহী।
সিলেট ওভারসিজ সেন্টারের দেয়া তথ্যমতে, এ অঞ্চলের প্রায় ৫০ লাখ প্রবাসী যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাস করেন। ওসমানী বিমানবন্দর থেকে সরাসরি আন্তর্জাতিক ফ্লাইট না থাকায় দুর্ভোগ পোহাতে হয় তাদের।
এর আগে ওসমানী থেকে বাংলাদেশ বিমানের সিলেট-যুক্তরাজ্যের হিথ্রো বিমানবন্দরে সরাসরি ফ্লাইট চালু থাকলেও ২০১৪ সালে কুয়াশার অজুহাত দেখিয়ে বিমানও সরাসরি ফ্লাইট বন্ধ করে দেয়।
এদিকে রানওয়েসহ বিমানবন্দর সংস্কার হলে ওসমানী বিমানবন্দরে আগামীতে নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু করা সম্ভব হবে বলে মনে করেন বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক হাফিজ আহমদ।
তিনি জানান, ওসমানী বিমানবন্দরের বিদ্যমান রানওয়ে ও ট্যাক্সিওয়ে শক্তিশালীকরণের মাধ্যমে ওয়াইড বডি বোয়িং ৭৭৭ মডেলের বিমানসহ অন্যান্য ফ্লাইট পরিচালনার জন্য ৪৫২ কোটি টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এখন কাজ শুরুর জন্য পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আরও খবর
Loading...