পর্যটন অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণে স্থানীয় প্রশাসনকে মনোযোগী হতে হবে- পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ আগস্ট ২০২০ : বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী এমপি পর্যটন অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণে মনোযোগী হওয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশনা প্রদান করেছেন।

স্থানীয় উন্নয়ন পরিকল্পনায় পর্যটনকে সম্পৃক্তকরণ ও পর্যটন সম্পর্কে জনসচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে আজ (২০.০৮.২০২০) বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড কর্তৃক রাজবাড়ী জেলার সাথে আয়োজিত অনলাইন কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে এ নির্দেশনা প্রদান করেন তিনি।

তিনি বলেন, অবকাঠামোগত উন্নয়ন পর্যটনের বিকাশে সহযোগিতা করে। তবে, নতুন পর্যটন অবকাঠামো নির্মাণের পাশাপাশি পুরাতন অবকাঠামোগুলো যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ করতে হবে। পর্যটন অবকাঠামো নির্মাণের সময় পরিবেশের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। স্থানীয় প্রশাসনকে এই বিষয়ে মনোযোগী হতে হবে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড স্থানীয় প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে একসাথে কাজ করবে। পর্যটন মহাপরিকল্পনা প্রণয়ন শেষে এর আলোকে সামগ্রিক পরিস্থিতি বিচার করে প্রয়োজনীয় নতুন পর্যটন অবকাঠামো তৈরি করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। নদী আমাদের জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। বাংলাদেশের নদী, নদী তীরবর্তী মানুষের জীবন ও নদীকে কেন্দ্র করে চলা কার্যক্রম সম্পর্কে না জানলে বাংলাদেশকে জানা অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। আমাদের নদীগুলো পর্যটনের অন্যতম আকর্ষণ। দেশের নদীগুলো কে কেন্দ্র করে রিভার ট্যুরিজম এর উন্নয়নে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হচ্ছে। এ পরিকল্পনায় রিভার ক্রুজ, বিভিন্ন ওয়াটার রাইডিং, বোটিং সহ নানা ধরনের পর্যটন সুবিধা যুক্ত করা হবে।

মাহবুব আলী বলেন, রাজবাড়ীতে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী মেলায় দেশী-বিদেশী পর্যটকদের অধিকতর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড কাজ করবে। এছাড়াও পদ্মা তীরবর্তী রাজবাড়ী জেলায় নদীভিত্তিক পর্যটন সুবিধা নির্মাণে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড স্থানীয় প্রশাসনের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করবে।

বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের পরিচালক আবু তাহের মুহাম্মদ জাবের এর সঞ্চালনায় ও রাজবাড়ী জেলার জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম এর সভাপতিত্বে কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ আহমেদ, পিরোজপুর জেলার বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিগণ, গণমাধ্যম কর্মী, বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ ও পর্যটনের সাথে সম্পৃক্ত বিভিন্ন সেক্টরের অংশীজন।

আরও খবর
Loading...