তিনটিই আমার প্রথম ছবি

f86ffe631faf59bfef4426ba68592a65-6প্রয়াত চলচ্চিত্র নির্মাতা চাষী নজরুল ইসলামের হাত ধরে চলচ্চিত্রে এসেছেন আলিশা প্রধান। গেল সপ্তাহে মুক্তি পেয়েছে তাঁর অভিনীত ছবি অজান্তে ভালোবাসা। ছবিটি মুক্তির পর বেশ কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে গিয়েছেন এই অভিনেত্রী। সেসব নিয়েই কথা হলো তাঁর সঙ্গে।
‘অজান্তে ভালোবাসা’ ছবিটি দেখতে গিয়েছিলেন কোথাও?
হুম্ম, ঢাকার চারটি সিনেমা হলে গিয়েছিলাম। গেল শুক্রবার ও এর পরের দিন। দর্শকদের সঙ্গে দারুণ সময় কেটেছে। প্রেক্ষাগৃহ-ভরা দর্শক দেখে আমি তো অবাক। বাংলা সিনেমা মানুষ দেখেন না—এটা ভুল ধারণা। ছবি ভালো হলে দর্শক অবশ্যই দেখেন।
এর মানে আপনি বলছেন ‘অজান্তে ভালোবাসা’ ভালো ছবি?
অবশ্যই। কারণ, সবাই ছবিটি দেখে প্রশংসা করেছেন। আমার অভিনয়ের প্রশংসা করছেন। আর যেমন গল্প মানুষ দেখতে চায়, সে রকম একটি গল্পপ্রধান সিনেমা এটি। আমার চরিত্রটি খুব স্মার্ট মেয়ের নয়। মজার ব্যাপার হলো, কিছুক্ষণ আগে (গতকাল) খবর পেলাম দ্বিতীয় সপ্তাহে আরও ৩০টি হল বুকিং দিয়েছে ছবিটি।
আপনার তো এটা তৃতীয় ছবি। অভিনয়ের ক্ষেত্রে নিজেকে কতটা সমৃদ্ধ করলেন?
সত্যি কথা বলতে কি, আমার তিনটি ছবিই ‘প্রথম’। আমার প্রথম ছবি ভুল যদি হয়-এর কাজ যখন শুরু করি, তখনই এই ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হই। আবার এরই ফাঁকে অন্তরঙ্গ সিনেমারও কাজ শুরু করি। এমন হয়েছে, একটার কাজ শেষ হওয়ার আগেই আরেকটার শুটিং শুরু করেছি। ওটা কিছুটা করে এসে আরেকটা ধরেছি। এই তিনটি ছবি দিয়ে আমি আমার চলচ্চিত্রে অভিনয়জীবন শুরু করি। তাই বলতে হবে, তিনটিই আমার প্রথম ছবি। তবে ছবিগুলো দেখতে গিয়ে আমার মনে হয়েছে, অভিনয়ে আমার যতটুকু ক্ষমতা, তার হয়তো ১৫-২০ শতাংশ ব্যবহৃত হয়েছে এতে। আমি এখন থেকে শতভাগ দিয়ে অভিনয় করব।
নতুন কোনো চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন?
জাকির হোসেন রাজুর প্রেমের কাজল ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। শিগগিরই শুটিং শুরু করব। অবশ্য এরই মধ্যে কয়েকটা ছবির প্রস্তাব এসেছিল। কিন্তু যেনতেনভাবে নির্মাণের পরিকল্পনা শুনেই পিছিয়ে এসেছি। আমি চাই বড় ব্যানারে ভালো কাজ করতে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.