করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে যা বলছেন বিশেষজ্ঞরা

টিকা সরবরাহের ঘাটতি থাকলে দুই কোম্পানির দুই ডোজ দেয়া যাবে কি না, এ নিয়ে ভিন্নমত আছে বিশেষজ্ঞদের।
অনেকেই বলছেন, নির্দিষ্ট টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিশ্চিত করতে না পারলে দেয়া যেতে পারে ভিন্ন কোম্পানির ডোজ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তাত্ত্বিক দিক বিবেচনা করলে কোভিডশিল্ডের দ্বিতীয় ডোজ হতে পারে স্পুটনিকের দ্বিতীয় ডোজ।
তবে এমন সিদ্ধান্ত নিতে নারাজ আইইডিসিআর।
আর অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা সময়মতো আসবে বলেও প্রতিষ্ঠানটির দাবি।

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কোভিশিল্ড টিকার চালানের অনিশ্চয়তার মধ্যেই রাশিয়ার স্পুটনিক ও চীনের সিনোফার্মাকে টিকার জন্য জরুরি ব্যবহারের অনুমদন দিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর।

সোমবার পর্যন্ত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসেবে টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছে ৫৮ লাখ ১৯হাজার ৭০৯ জন।
দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছে ২৯ লাখ ৩৬ হাজার ২৪১ জন।
অর্থাৎ এখনো ২৮ লাখ ৮৩ হাজার ৪৬৮ জন দ্বিতীয় ডোজ নেয়ার বাকি।

আর দেশে টিকার মজুত আছে ১৫ লাখ ৪৪ হাজার ৫০ ডোজ।
এমন অবস্থায় ঘাটতি আছে প্রায় ১৩ লাখ ৩৯ হাজার ৪১৮ ডোজ।
তাই স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন জাগে সপ্তাহ দু-একের মধ্যে অক্সফোর্ডের টিকার চালান না পেলে বিকল্প হিসেবে তাদের অন্য ভ্যাকসিনের দ্বিতিয় ডোজ দেয়া যাবে কি না।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.