কুড়িগ্রাম সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিন ভারত থেকে বাংলাদেশে ঢুকছে শত শত মানুষ

উত্তরের সীমান্তর্বতী জেলা কুড়িগ্রাম।
২৬৭ কিঃ মিঃ জুড়ে এ সীমান্ত।
ফুলবাড়ী ভুরুঙ্গামারী,রৌমারী রাজীবপুর ও নাগেশ্বরী উপজেলা সীমান্ত ঘেষা।
সারা জেলায় ভারতীয় সীমান্তে কাটাতারের বেড়া থাকলেও ৬০ কিঃ মিঃ এলাকায় নেই কোন কাঁটাতারের বেড়া।
সীমান্তর্বতী জেলা হওয়ায় এখানকার অনেক সীমান্তের মানুষ ভারতের বিভিন্ন জায়গায় কাজের জন্য য়ায়।
কাজ করে ফিরেও আসে। ঈদকে সামনে রেখে এখানকার মানুষ বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে দেশে ঢুকে পড়ছে। আতংকিত হয়ে পড়ছে জেলার মানুষ।
কারণ ভারতের ভয়াভয় করোনার কথা এখন জেলার মানুষের মুখে মুখে।
মানুষ জন কাঁটাতারের বেড়া পারি দিয়ে বিএসএফ এর চোখ ফাঁকি দিয়ে ঢুকে পড়ছে। এরা মানছে না কোন স্বাস্থবিধি। স্থানীয়রা মনে করছে যদি এসব মানুষের প্রতি নজর দেয়া না হয় তা হলে পাশ^র্বতী দেশের মত আমাদের সীমান্তর্বতী জেলা কুড়িগ্রামে করোনা মহামারী হবার সম্ভাবনা রয়েছে।

পুলিশ সুপার সৈয়দা জান্নাতআরা জানিয়েছেন ভারতে ভয়াবহ করোনার মহামারী যেন বাংলাদেশে ঢুকতে না পারে এ জন্য সীমান্তর্বতী থানা গুলোতে এলার্ট করেছি।
যারা ভারত থেকে চিকিৎসা অথবা কাজ করে আসা মানুষদের কোয়ারেন্টাইনে থাকার ব্যবস্থা নিয়েছি।

 

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.