পেট্রল ডিজেলের চেয়ে উড়োজাহাজের জ্বালানির দাম কম!

পেট্রল ও ডিজেলের দাম ছাড়িয়ে গেছে বিমানের জ্বালানির দামকেও।
ভারতে বৃহস্পতিবার প্রতি  লিটার পেট্রলের দাম ১০৮ রুপি ৭৮ পয়সায়।
ডিজেলের দরও ১০০ রুপির উপরে।
প্রতি  লিটার ডিজেল বিক্রি হয়েছে ১০০ রুপি ১৪ পয়সায়।
অথচ বৃহস্পতিবার বিমানের জ্বালানি এয়ার টারবাইন ফুয়েল (এটিএফ)-এর দর লিটার প্রতি ৭৬ রুপি ৫৯ পয়সা।
ফলে লিটার প্রতি জ্বালানির দর অনুযায়ী এমনটা মনে হতেই পারে, মোটরসাইকেল চালানোর চেয়ে উড়োজাহাজে ওড়া সস্তার!

ভারতে প্রায় সব কিছুতেই জিএসটি কার্যকর হলেও এখনও পর্যন্ত তার বাইরে রয়েছে জ্বালানির দাম।
আন্তর্জাতিক বাজারে ওঠাপড়ার উপরে নির্ভর করেই প্রতি দিন দাম কমে বা বাড়ে।
তবে পেট্রল-ডিজেলের এত বেশি দামের পিছনে একটা বড় কারণ দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার ও বিভিন্ন রাজ্য সরকারের করের বোঝা।

বর্তমানে ভারতের কেন্দ্রীয় যে পরিমাণে কর চাপায় তাতে প্রতি লিটার পেট্রলে কেন্দ্র বিক্রি হয় ৩২.৮০ রুপি আর ডিজেলের ক্ষেত্রে ৩১.৮০ রুপি।
এর উপরে বিভিন্ন রাজ্য সরকার বিভিন্ন হারে কর, সেস, ভ্যাট বসায়।
যার ফলে পেট্রল, ডিজেল কেনার সময় জ্বালানির মূল দামের থেকে কর দিতে হয় বেশি।
মোটামুটি এই দুই জ্বালানিতে কেন্দ্র ৬৩ শতাংশ এবং রাজ্য ৩৭ শতাংশ কর চাপায়।
আর এই করের হারটাই বিমানের জ্বালানির ক্ষেত্রে অনেকটা কম।

তবে অনেক দেশের তুলনায় ভারতে বিমান-জ্বালানির দাম বেশি।
এর পিছনেও কারণ করের হার।
ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের ১১ শতাংশ কর তো রয়েছেই তার উপরে বিভিন্ন রাজ্য সরকার মোটামুটি শূন্য থেকে ৩০ শতাংশ হারে ভ্যাট বসায়।

এছাড়া করোনাকালে বিমান সংস্থাগুলো লোকসানে চলায় সম্প্রতি ভারতের কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রণালয় সব রাজ্যকে ভ্যাট কমানোর আর্জি জানিয়েছে। আর্জিতে বলা হয়, সর্বত্র ১ থেকে ৪ শতাংশ করা হোক ভ্যাটের পরিমাণ।
কেরালা সরকার ভ্যাটের হার কমিয়ে ১ শতাংশ করেছে।
এর ফলে সেই রাজ্যে এখন বিমানের জ্বালানি অন্য রাজ্যের তুলনায় সস্তা।

 

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.