ট্রাকে চাঁদাবাজি বন্ধে ডিসিদের সহযোগিতা চেয়েছিঃ কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে রাজধানীতে ট্রাকে করে কৃষিপণ্য আনতে কৃষকদের অতিরিক্ত খরচ করতে হয়। এটাকে কীভাবে কমানো যায় সেজন্য জেলাপ্রশাসকদের সহযোগিতা চেয়েছি।

বুধবার সকালে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলাপ্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে কৃষি মন্ত্রণালয়ের নির্ধারিত অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন কৃষিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সবসময় খাদ্য ঘাটতির দেশ ছিল।
যদিও আমাদের জলবায়ু-মাটি উৎপাদনের জন্য খুবই উপযোগী।
আমরা আধুনিক ও বিজ্ঞান ভিত্তিক কৃষিতে যেতে পারিনি বলে আমাদের খাদ্যের ঘাটতি ছিল।
বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসে অনেকগুলো কর্মসূচি নিয়েছে কৃষকদের প্রণোদনা দেওয়ার জন্য।
সারের দাম অস্বাভাবিকভাবে কমানো হয়েছে।
কৃষকদের ১৬টি কৃষি পণ্যে ৪ শতাংশ সুধে ঋণ দেওয়া হচ্ছে।
পানির প্রাপ্যতা, বিদ্যুতের চাহিদা পূরণ হয়েছে। ফলে উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে।
এখন বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ হলো কৃষিপণ্য বিক্রি করে কীভাবে কৃষকরা লাভ করতে পারে, যা দিয়ে চাষিদের আয় বাড়ে জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধি পায়।
কৃষি খাতের উন্নয়ন হলে অর্থনীতির অন্যান্য খাতের উন্নয়ন তরান্বিত হয়।
সে লক্ষ্যে কৃষি পণ্যের বাজার নিশ্চিত করতে হবে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.