খেলতে না চাইলে খেলো না, ফুল ব্রেক নাও: সাকিবকে সুজন

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে সাকিব যেতে চান না, এটা দুদিন আগেই দুবাইতে যাওয়ার আগে মিডিয়ার সামনে বলে গেছেন তিনি।
এ নিয়ে সোমবার বেশ ক্ষোভ ঝেড়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সাকিবের হঠাৎ এভাবে বেঁকে বসাটাকে শুধু বিসিবি সভাপতিই নন, ভালোভাবে নিতে পারেননি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কেউ।
সবাই এখন এ ব্যাপারে কঠোর। একটা অবস্থানে থেকে কথা বলছেন তারা।
চিন্তাটা এমন, ‘সাকিবকে ছাড়াই চলতে হবে সামনের দিনগুলো।’

মোটামুটি সাকিবকে ছাড়াই এখন চিন্তা করতে শুরু করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তারা।
আজ মিরপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ক্ষোভ ঝাড়লেন টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনও।
তিনি সরাসরি বলে দিলেন, ‘সাকিব না খেলতে চাইলে খেলবে না। আই ডোন্ট কেয়ার। আমি মনে করি বিসিবিও কনসার্ন না।’

সাকিব বার বার নিজের ইচ্ছেমতো খেলতে চান, আবার হঠাৎ করে বলেন খেলবো না। এটাকে আর চলতে দেওয়া যায় না বলেই মন্তব্য করেছেন সুজন।
তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় এখন সবচেয়ে বড় সময়।
বোর্ডের উচিত একটা ফুলস্টপ করা। ইটস অ্যানাফ।
এটা বারবার এমন হতে পারে না যে, আমি চাইলাম খেললাম, চাইলাম খেললাম না। এখন শুধু সাকিবের কথা বলছি না, সবাইকে ছাড়াই ভাবার সুযোগ এসেছে।’

তামিম ইকবাল সম্প্রতি টি-টোয়েন্টি থেকে ছয় মাসের ছুটি চেয়েছেন।
মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, বায়োবাবল যতদিন থাকবে ততদিন টেস্ট খেলবেন না।

খালেদ মাহমুদ সুজন এ ব্যাপারে বলেছেন, ‘সাকিব-তামিম একটা সিরিজ না খেললে ওই জায়গায় নতুন কাউকে সুযোগ দেওয়া হবে।
আবার ওরা ফিরলে ওই ছেলেটার কী হবে? সিনিয়র ক্রিকেটারদের প্রয়োজন অপরিসীম।
কিন্তু ওদের ছাড়া দল হবে না এমন নয়। তারা আমাদের ‍গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার।
কিন্তু তারা না খেললে যে দেশের ক্রিকেট বন্ধ হয়ে যাবে তা নয়।
জোর করে তো কাউকে খেলানো যাবে না। তাদের জায়গায় অন্য যারা সুযোগ পাবে তাদের জন্য বড় সুযোগ হবে।’

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.