রহস্যময় ‘এক কিডনি গ্রাম’

কিডনি মানুষের শরীরের গুরুত্বপূর্ণ এক অঙ্গ।
প্রত্যেকের শরীরেই দুটি করে কিডনি থাকে।
যদিও বিভিন্ন রোগে কারও কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হলে চিকিৎসকের পরামর্শে আক্রান্ত কিডনি অপসারণ করা হয়।
এজন্য আবার ওই কিডনির স্থানে করা হয়ে ট্রান্সপ্ল্যান্টও।

কারণ মানুষের বেঁচে থাকতে দুটো কিডনিরই প্রয়োজন আছে।
আবার আর্থিক অভাবের কারণে অনেকেই কিডনি ট্রান্সপ্ল্যান্ট না করিয়ে এক কিডনি নিয়েই বছরের পর বছর বেঁচে থাকেন। তবে সেক্ষেত্রে ঝুঁকি থেকেই যায়।

তবে সবচেয়ে দুঃখের বিষয় হলো, অনেকেই টাকার লোভে বিক্রি করে দেন শরীরের এই গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ।
যদিও বিষয়টি অনেকেই লুকিয়ে করেন।
তবে জানলে অবাক হবে, আফগানিস্তানে এমন একটি গ্রাম আছে যেখানকার সব বাসিন্দাই এক কিডনি নিয়ে বেঁচে আছেন।

এ কারণে স্থানটি ‘এক কিডনি গ্রাম’ নামে পরিচিত হয়ে উঠেছে।
আফগানিস্তানের হেরাত শহরের কাছে শেনশায়বা বাজার এলাকাতেই আছে ‘এক কিডনি গ্রাম’।

গত বছর তালেবান ক্ষমতায় আসার আগ থেকেই আফগানিস্তান অর্থনৈতিকভাবে ধসে পড়ে।
ফলে সে দেশের অনেক পরিবারের জন্যই খাবার জোগাড় করা কষ্টকর হয়ে পড়ে।

তারা এতোটাই অভাবগ্রস্ত হয়ে পড়েন যে, কিছু মানুষ ঋণ পরিশোধ করতে ও খাদ্য কেনার জন্য তাদের একটি করে কিডনি কালোবাজারে বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেন।

ফ্রান্স২৪ প্রেসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নুরউদ্দিন নামের ৩২ বছর বয়সী এক বাবা বলেন, ‘আমি চাইনি, কিন্তু আমার কাছে কোনো বিকল্প ছিল না।
আমি এটা আমার সন্তানদের জন্য করেছি।’

‘তবে আমি এখন এ কাজের জন্য অনুতপ্ত।
কারণ আমি শারীরিকভাবে ভেঙে পড়েছি।
আর কাজ করতে এমনকি ভারী কিছু তুলতেও পারছি না। আমি প্রতিদিন ব্যথায় ভুগছি।’

বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে মানুষের অঙ্গ বিক্রি বা কেনা বেআইনি, কিন্তু আফগানিস্তানে এটি অনিয়ন্ত্রিত।
চিকিৎসকরাও বলছেন, কিডনিদাতারাই তা বিক্রির জন্য অনুরোধ করছেন।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.