বিশেষ পরিস্থিতিতে জ্বালানির দাম নির্ধারণ করতে পারবে সরকার

বিশেষ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটারি কমিশন (বিইআরসি) নয়, সরকার বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম পুনর্নির্ধারণ করতে পারবে। এমন বিধান রেখে ‘বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (সংশোধন) অধ্যাদেশ, ২০২২’ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভাপতিত্ব করেন। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘আমাদের এখনে বিইআরসি সব (দাম সমন্বয়) হ্যান্ডেল করে। কিন্তু বিইআরসির কিছু কিছু জায়গায় একটু প্রবলেম হয়, যেমন ৯০ দিন পর্যন্ত তারা সিদ্ধান্ত না দিয়ে থাকতে পারে। কারণ আইনে বলা আছে বিইআরসি ৯০ দিনের মধ্যে এগুলো সব শুনানি নিয়ে সিদ্ধান্ত দেবে। অনেক সময় আমাদের ইমিডিয়েট প্রয়োজন আসে, অনেক সময় তারা ঠিকভাবে ইয়ে (সমন্বয়) করতে পারে না।’

সে জন্য বিইআরসির আইনে সংশোধন আনা হচ্ছে জানিয়ে খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘সরকার প্রয়োজনবোধে বিভিন্ন বিশেষ কারণে এ ট্যারিফ নির্ধারণ করতে পারবে।’

তাহলে কী মন্ত্রণালয় এটি যেকোনো সময় করতে পারবে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বিশেষ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে। যেমন এখন ধরুন ৯০ দিন সময় নিয়ে ওনারা (বিআরসি) শুনানি নেন। একটা ইমার্জেন্সি এলো। আবার অনেক সময় দাম কমে গেলো কিন্তু বিআরসি ৯০ দিন ধরে দাম কমাবে। সরকার হস্তক্ষেপ করে একটা নোটিফিকেশন দিয়ে দাম কমিয়ে নিয়ে আসতে পারবে।’

স্বাভাবিকভাবে দাম সমন্বয়ের কাজ বিইআরসি কমিশনই করবে। তবে বিশেষ পরিস্থিতিতে সরকার এক্ষেত্রে বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করবে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.