ব্র্যাকের তিনদিনব্যাপী হোপ ফেস্টিভ্যাল শুরু

বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হতে যাচ্ছে তিনদিনব্যাপী ব্র্যাক হোপ ফেস্টিভ্যাল। উৎসব চলবে আগামী শনিবার, ১১ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। ‘হৃদয়ে বাংলাদেশ’, ‘সম্ভাবনার শক্তি’ এবং ‘যে পৃথিবী আমরা গড়তে চাই’ এই তিনটি প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সাজানো হয়েছে তিন দিনের অনুষ্ঠানমালা।

ঢাকার আর্মি স্টেডিয়ামে, প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত এই আয়োজনে প্রিরেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে সকলে আমন্ত্রিত।

বাংলাদেশের হৃদয় হতে, সারা বিশ্বজুড়ে আশা জাগানোর ৫০ বছরের পথচলা আর বাংলাদেশের মানুষের দৃঢ়তা, সাহস ও এগিয়ে যাওয়ার শক্তিকে উদ্‌যাপন করতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই উৎসব। বাধা, বিপদ, দুর্যোগে বাংলাদেশের লড়াকু মানুষ থমকেছে, কিন্তু থামেনি। সীমাহীন সম্ভাবনায় খুঁজে নিয়েছে এগিয়ে যাবার পথ। এই উৎসবের মূল অনুপ্রেরণা ও আয়োজন তাদেরকে ঘিরেই। কোটি মানুষের জীবনের মোড় পরিবর্তনের উদাহরণ সবাইকে নিজ নিজ বাধা পেরিয়ে, স্বপ্ন জয়ের অনুপ্রেরণা দেবে – এই আশা ব্র্যাকের।

উৎসবে দর্শকদের জন্য থাকছে আবহমান বাংলার চিরায়ত লোকজ সংস্কৃতির সম্মিলন – পুঁথিপাঠ, গল্পপাঠের আসর, বায়োস্কোপ, পুতুল নাচ, শিশুদের খেলার জগৎসহ দিনব্যাপী নানা প্রদর্শনী। দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠানের মূল মঞ্চে প্রতিদিনই থাকছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। থাকছে গহনা বানানো, কারিগর ও কার্টুনিস্টদের সঙ্গে আনন্দদায়ক কর্মশালায় যোগ দেবার সুযোগ।

এ আয়োজনে তরুণদের জন্য দুটি পুরস্কারও প্রদান করা হবে। এর একটি ইতিবাচক সামাজিক উদ্যোগের স্বীকৃতি হিসাবে আমরা নতুন ইয়াং চেঞ্জমেকার্স অ্যাওয়ার্ড-এর মাধ্যমে সম্মাননা জানানো হবে তৃণমূল পর্যায়ের সেরা ৫ তরুণ সামাজিক উদ্যোক্তাকে। এছাড়াও থাকছে কর্মক্ষেত্রে নারীদের জন্য বিশেষ সম্মাননা তাগা আউটস্ট্যান্ডিং ইয়াং প্রফেশনালস অ্যাওয়ার্ড।

জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মাধ্যমে ‘হৃদয়ে বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্য নিয়ে প্রথম দিনের কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে। ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদের জীবন ও মানুষের জীবনমান উন্নয়নে তাঁর অবদান প্রদর্শিত হবে একটি তথ্যচিত্রে। ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ্ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখবেন।

স্বাগত বক্তব্যের পর শুরু হবে ফেস্টিভ্যালের মূল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানমালা। আয়োজনের শুরুতে পুঁথিপাঠ করবেন প্রখ্যাত অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু ও তাঁর দল। সুরের মূর্ছনায় দর্শকদের মুগ্ধ করতে থাকবে বেঙ্গল পরম্পরা সংগীতালয়-এর রাগসঙ্গীত পরিবেশনা। মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশের নারীরা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে যে সাহসী অবদান রেখেছেন, তাদের সেই সাহস ও শক্তির গল্প বলা হবে একটি তথ্যচিত্রের মাধ্যমে। এরপরে মঞ্চে ‘প্রতিদিনের যোদ্ধা’ নাটক নিয়ে আসবে স্বনামধন্য নাট্যদল প্রাচ্যনাট।

শত প্রতিকূলতা পার হয়ে স্বপ্নজয়ী ডা. আফসানা আকতারের জীবনালেখ্য নিয়ে পরিবেশিত হবে মঞ্চনাটক। ডা. আফসানা নিজেও এইদিন মঞ্চে উপস্থিত হয়ে নিজের জীবনের গল্প তুলে ধরবেন। সঙ্গীত পরিবেশন করবে অর্ণব অ্যান্ড ফ্রেন্ডস ও লালন ব্যান্ড। প্রথমদিনের আয়োজনের সমাপ্তি ঘটবে তাদের পরিবেশনার মাধ্যমে।

উৎসবস্থলে ব্র্যাকের প্রাতিষ্ঠানিক ইকোসিস্টেমটিকে ফুটিয়ে তোলা হবে। নানা আয়োজনের মাধ্যমে ব্র্যাকের উন্নয়ন কার্যক্রম, এন্টারপ্রাইজেস, বিনিয়োগ কর্মকাণ্ড, বিশ্ববিদ্যালয়সহ সংস্থাটির অন্যান্য কার্যক্রম তুলে ধরা হবে।

হোপ ফেস্টিভ্যালে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের সহ-আয়োজক প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে, বিকাশ, ব্র্যাক ব্যাংক, আইপিডিসি ফাইন্যান্স ও ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.