‘আনসার বাহিনী এখন আধুনিক ও মডেল ব্যাটালিয়ন’

বাংলাদেশ আনসার বাহিনী এখন আধুনিক ও মডেল ব্যাটালিয়নে রূপ পেয়েছে বলে মন্তব্য করেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ রোববার গাজীপুরের সফিপুর আনসার একাডেমিতে আনসার বাহিনীর ৪৩তম জাতীয় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে আনসার বাহিনীর উন্নয়নে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়। আমরা আনসার বাহিনীর জন্য নতুন আইন প্রণয়ন, ব্যাংক প্রতিষ্ঠা, পোশাক, কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করেছি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘১৯৯৮ সালে আনসার বাহিনীকে জাতীয় পতাকা দিয়েছি। নানা সুযোগ-সুবিধা ও চাকরি স্থায়ী করেছি। আনসার বাহিনীর পদোন্নয়ন ও বিদেশে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। এ বাহিনীকে তাদের আধুনিকীকরণ করে মডেল ব্যাটালিয়নে রূপ দেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আনসার সদস্যরা মাসিক যে ভাতা পান, তা বাড়ানো হয়েছে। ২৭টি উপজেলায় দৃষ্টিনন্দন অফিস ও আধুনিক সুবিধা সম্পন্ন অফিস নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। গরিব আনসার সদস্যদের জন্যও নতুন ঘরের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। যখনই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে, তখনই আনসারদের জন্য সব কিছু করা হয়।’

দেশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় আনসার বাহিনীর ভূমিকা উল্লেখ করে সরকারপ্রধান বলেন, বাংলাদেশের প্রথম সরকার গঠনের পর গার্ড অব অনার দিয়েছিল আনসার বাহিনীর সদস্যরা। তারা মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে অনেকে জীবন উৎসর্গ করেছেন। দেশে যখন জ্বালাও-পোড়াও চলছিল, তখন আনসার বাহিনী তাদের নিজ নিজ এলাকায় দায়িত্ব পালন করেছে। আগুন সন্ত্রাস থেকে মুক্ত করতে কাজ করেছে, সহযোগিতা করেছে।

বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, জাতির পিতার নেতৃত্বে এ দেশের মানুষ স্বাধীনতা অর্জন করেছে। কাজেই কোন বাহিনীর কী প্রয়োজন, সেটা আমরা উপলব্ধি করতে পারি। সেটা উপলব্ধি করতে পারি বলেই আওয়ামী লীগ সরকারে আসার পর থেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উন্নতিতে কাজ করা হচ্ছে। আরও উন্নত করার লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্বেই মন্দা যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘দেশের কোথাও যেন একটু জমিও অনাবাদি না থাকে। এজন্য আনসারদের ভূমিকা রাখতে হবে। গ্রামের মানুষদের কৃষিকাজে উদ্বুদ্ধ করতে হবে।’

অনুষ্ঠানে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী ৮ ক্যাটাগরিতে বাহিনীর ১৮০ জনকে সাহসিকতা ও সেবা পদক দেন।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.