দাঁত ও মাড়ির ব্যাকটেরিয়াও ক্ষতি কারণ হয়ে দাঁড়ায় হার্টের

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মানুষ প্রাণ হারায় হৃদরোগে, এমনটিই জানাচ্ছে পরিসংখ্যান। করোনারি হৃদরোগের কারণে প্রতি বছর প্রায় ৯ মিলিয়ন মানুষ মারা যান, তথ্য ইউরোপিয়ান জার্নাল অব প্রিভেন্টিভ কার্ডিওলজির।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ৪৫ বছর বয়স হওয়ার পর থেকে হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ার পেছনে অন্যতম কারণ হলো মাড়িতে জমে থাকা ব্যাকটেরিয়া, যা রক্ত বাহিকার মধ্যে ঢুকলেই রক্ত জমাট বাঁধতে শুরু করে। ফলে রক্ত চলাচলে সমস্যা হতে পারে।

জার্নালের তথ্য বলছে, বিশ্বের একটি বড় অংশের হৃদরোগীরা দাঁত বা মাড়ির সমস্যায় ভোগেন। প্রায় সাড়ে তিন গুণ হার্টের রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায় দাঁতের সমস্যা থেকে।

এ কারণেই চিকিৎসকরা মুখ ও দাঁত পরিষ্কার রাখার পরামর্শ দেন সব সময়। দাঁত বা মুখের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে কী কী নিয়ম মেনে চলবেন তা জেনে নিন-

>> গবেষকদের মতে, যারা দিনে অন্তত দু’বার ব্রাশ করেন তাদের অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন হওয়ার সম্ভাবনা কম ও হার্ট ফেইলিওরের ঝুঁকিও কমে যায়।

এর পাশাপাশি নিয়মিত দু’বেলা ব্রাশ করলে অনিয়মিত হৃদস্পন্দনের ঝুঁকিও কমে যায়। নরম ব্রিসেলযুক্ত ব্রাশ দিয়ে দাঁত মাজতে হবে।

>> প্রতি ৩-৪ মাসের মধ্যে পাল্টে ফেলতে হবে টুথব্রাশ। এতে মাড়ির স্বাস্থ্যবিধি রক্ষা করা যাবে। এছাড়া মদ্যপান, ধূমপান ও তামাক সেবন বন্ধ করুন। কোনো সমস্যা হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

>> চকোলেট দাঁতের স্বাস্থ্য জন্য খারাপ নয়, বরং ভালো। তেমনটিই জানা গেছে গবেষণায়। চকলেট দাঁতের প্লাক দূর করতে সাহায্য করে। আর এর থেকেই দাঁতের সমস্যা দূর হয়। তবে চকলেট বেশি খেলে আবার দাঁতের ক্ষতি হতে পারে।

>> দুধ থেকে তৈরি খাবার দাঁতের জন্য অত্যন্ত উপকারী বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। দুধে থাকে ক্যালসিয়াম, যা দাঁতের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায়। আরও আছে ভিটামিন ডি, যা দাঁতের পাশাপাশি হাড়েরও খেয়াল রাখে।

>> এমনকি স্ট্রবেরি বা আপেল খেলেও ভালো থাকে মুখের স্বাস্থ্য। আপেল বা স্ট্রবেরিতে যে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ফাইবার আছে, তা দাঁতে বা মাড়িতে জমে থাকা ব্যাকটেরিয়া দূর করতে সাহায্য করে।

সূত্র: হেলথ. হার্ভার্ড

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.