রাশমিকা মান্দানার ডিপফেক ভিডিও কাণ্ডে পদক্ষেপ নিল দিল্লি পুলিশ

রাশমিক মান্দানার একটি ডিপফেক ভিডিও অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ে। তার মুখ অন্য এক নারীর শরীরের ওপর বসিয়ে একটি ভিডিওটি বানানো হয়েছে যেখানে একটি ফিটেড পোশাক পরে লিফটে উঠতে দেখা গেছে। ইতোমধ্যেই এ বিষয়ে মুখ খুলেছেন অনেক বলিউড তারকা। এবার অপরাধীকে ধরতে মামলা করেছে দিল্লি পুলিশ।

গত শুক্রবার দিল্লি পুলিশের পক্ষে স্পেশাল সেল পুলিশ স্টেশনে একটি ফার্স্ট ইনফরমেশন রিপোর্ট মামলা করা হয়। দিল্লি পুলিশের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম।

ভিডিও নিয়ে দিল্লির নারী কমিশন নোটিশ পাঠানোর পর এফআইআর জারি করে দিল্লি পুলিশ। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৬৫, ৪৬৯ ধারায় এবং তথ্যপ্রযুক্তি সংক্রান্ত আইনের ৬৬সি ও ৬৬ই ধারায় জারি করা হয়েছে অভিযোগ। কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিকে পাঠানো হয়েছে কড়া নির্দেশিকা। সরকারের পক্ষ থেকে জারি হওয়া নির্দেশিকায় বলা হয়েছে ‘ডিপফেক’ ভিডিও যারা তৈরি করবে, ধরা পড়লে তিন বছরের জেল হতে পারে।

ভিডিওটি রাশমিকা মান্দানার না। প্রাথমিক ভিডিওটি মূলত গত ৮ অক্টোবর ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করা হয়েছিল, যেখানে জারা প্যাটেল নামে একজন নারীকে দেখা গেছে। তিনি মূলত একজন ব্রিটিশ ভারতীয় ইনফ্লুয়েন্সার। এআই-এর সাহায্য নিয়ে তার মুখকে ডিজিটালি বদলে রাশমিকার মুখ ব্যবহার করা হয়েছে। তবে কারা এ নকল ভিডিওটি তৈরি করেছে এবং তাদের উদ্দেশ্যই বা কী ছিল তা এখনো জানা যায়নি।

ডিপফেক ভিডিও দেখে খুবই বিরক্ত জারা। নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে লিখেছেন, ‘আমার নজরে এসেছে, কেউ আমার ভিডিও নিয়ে একজন জনপ্রিয় অভিনেত্রীর মুখ ব্যবহার করে একটি ডিপফেক ভিডিও তৈরি করেছে। ডিপফেক ভিডিওর সঙ্গে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। এ বিষয়ে আমি খুব বিরক্ত। আমি সেই নারী ও মেয়েদের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন, যাদের এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের রাখার ব্যাপারে আরও বেশি ভয় থাকতে হবে। অনুগ্রহ করে এক ধাপ পিছিয়ে যান এবং আপনি ইন্টারনেটে যা দেখছেন তা যাচাই করুন। নেটদুনিয়ায় সবকিছু বাস্তব নয়।’

ভিডিও কাণ্ডে সরব হয়েছেন রাশমিকা নিজেও। অভিনেত্রী বলেন, ‘এটা শুধু আমার কাছেই নয়, আমাদের প্রত্যেকের কাছেই অত্যন্ত ভীতিকর, যারা প্রযুক্তির অপব্যবহারের কারণে আজ এত ক্ষতির সম্মুখীন’।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.