বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ও সক্ষমতা বাড়াতে প্রশিক্ষণ পেলেন ২৮৭ জন

বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) তত্ত্বাবধানে  তিন সপ্তাহব্যাপী আইকাও গভর্নমেন্ট সেফটি ইন্সপেক্টর এয়ারওয়ার্দিনেস (জিএসআই-এয়ার) প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। এতে নতুন যোগ দেওয়া ২৫৬ জনসহ ২৮৭ প্রশিক্ষণার্থী অংশ নিয়েছেন।

আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল সংস্থার (আইকাও) সহযোগিতায় এবং ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ও বোয়িং কোম্পানির আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতায়  সিভিল এভিয়েশন একাডেমি এ প্রশিক্ষণের আয়োজন করে।

বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) কোর্স শেষ করা প্রত্যেককে সার্টিফিকেট দেয় বেবিচক।

বেবিচক জানায়, প্রশিক্ষণার্থীদের বিহেভিয়ার ডিটেকশন, এভিয়েশন সিকিউরিটি, ক্যাপাসিটি বিল্ডআপের ওপর কোর্স করানো হয়।     সনদপত্র বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বোয়িং কোম্পানির প্রতিনিধি রিতিশ পিল্লাই।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিভিল এভিয়েশন একাডেমির পরিচালক প্রশান্ত কুমার চক্রবর্তী।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে সিভিল এভিয়েশন একাডেমির সার্বিক কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং  যুগোপযোগী আধুনিক প্রশিক্ষণ দেওয়া নিশ্চিত করার মাধ্যমে সিভিল এভিয়েশন খাতকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার দৃঢ় প্রত্যয় প্রকাশ করেন। তিনি বাংলাদেশের সিভিল এভিয়েশন খাতকে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের সিভিল এভিয়েশন হাব -এ পরিণত করার লক্ষ্যে সিভিল এভিয়েশন একাডেমিকে কার্যকরী ভূমিকা পালনের সার্বিক নির্দেশনা দেন।

উল্লেখ্য, সিভিল এভিয়েশন একাডেমি ১৯৭৫ সাল থেকে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের অধীনে কর্মরত কর্মকর্তা, কর্মচারী ও বিভিন্ন সংস্থার কর্মীদের জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.