অযোগ্য পাইলট নিয়োগে সহায়তা, বিমান ক্যাপ্টেনের লাইসেন্স স্থগিত

অযোগ্য পাইলট নিয়োগে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে বিমান বাংলাদেশের পাইলট ক্যাপ্টেন সাজিদ আহমেদের লাইসেন্স স্থগিত করেছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।

সম্প্রতি বেবিচকের পরিচালকের (ফ্লাইট সেফটি অ্যান্ড রেগুলেশনস) সই করা এ আদেশে এই লাইসেন্স স্থগিত করা হয়।

এ ব্যাপারে বেবিচক জানায়, অযোগ্য পাইলট নিয়োগে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে লাইসেন্সটি স্থগিত করেছে তারা।

আদেশে বলা হয়, গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে বিমানে অযোগ্য পাইলট নিয়োগে সাজিদের সংশ্লিষ্টতার তদন্ত না হওয়া পর্যন্ত তার লাইসেন্স স্থগিত থাকবে।

ক্যাপ্টেন সাজিদ আহমেদ বিমানের প্রশিক্ষণ প্রধান ছিলেন। এই অভিযোগেই চলতি বছরের ৯ মার্চ তাকে ওই পদ থেকে অপসারণ করা হয়।

এদিকে, একটি গণমাধ্যমে বিমানের পাইলট নিয়োগের অনিয়মের কথা উঠে এলে তদন্ত শুরু করে বিমান। বিমানের তদন্তে জানা গেছে, ক্যাপ্টেন সাজিদ আহমেদ বিমানে ‘কৃত্রিম পাইলট সংকট’ তৈরি করেছিলেন। পরে তার স্ত্রী সাদিয়া আহমেদকে চুক্তিভিত্তিক পাইলট হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়।

শিক্ষাগত সনদ ভুয়া প্রমাণিত হওয়ায় মার্চের শেষদিকে বেবিচক সাদিয়া আহমেদের বাণিজ্যিক পাইলট লাইসেন্স (সিপিএল) স্থগিত করে বেবিচক। তবে বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর সাদিয়া দেশত্যাগ করেন।।

ক্যাপ্টেন সাজিদের বিরুদ্ধে বিমানে ক্ষমতার অপব্যবহার করে তার স্ত্রী সাদিয়া আহমেদসহ অন্যদের অযৌক্তিক সুবিধা, ককপিট ক্রুদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার ও বৈষম্যসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগ ছিল।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.