খালি পেটে হালকা গরম পানি পানে যে ৭ উপকার

সকালে ঘুম থেকে উঠেই এক গ্লাস কুসুম গরম পানি খা্ওয়া শরীরের জন্য খুবই উপকার। পেট পরিষ্কার, শরীরে পানির ঘাটতি পূরণ, খাদ্যনালী ও পাকস্থলী ভালো থাকে।  এছাড়া ত্বক ভালো রাখে।

ঘুম থেকে উঠে এক গ্লাস কুসুম গরম পানি খা্ওয়া নিয়ে বিভিন্ন মতবাদ রয়েছে। আসলে তা কতটা সত্যি। আমাদের শরীরের ৭০ শতাংশ পানি। সুস্থ থাকলে একজন মানুষের পানি পানের বিকল্প নেই। তবে এখন প্রশ্ন হলো সুস্থ থাকতে প্রতিদিন কত লিটার পানি খাবেন?

সুস্থ থাকার জন্য একজন মানুষের প্রতিদিন অন্তত দুই লিটার পানি খাওয়ার প্রয়োজন বলে মনে করেন বেশির ভাগ চিকিৎসক।

১. ওজন কমানোর প্রথম শর্ত হলো বিপাকীয় কার্যক্রম (খাবার থেকে শরীরের শক্তি উৎপাদন প্রক্রিয়া) উন্নত করা। সকালে খালি পেটে নিয়মিত হালকা গরম পানি খেতে পারলে সে প্রক্রিয়াটি উন্নত হয়।মেদ ঝরাতেও সাহায্য করে এ অভ্যাস।

২. হালকা গরম পানি পরিপাকতন্ত্রকে উদ্দীপিত করে। ফলে শরীরের পক্ষে খাদ্যবস্তু ভাঙা ও তা থেকে পুষ্টি আহরণ করার কাজটি সহজ হয়।

৩. শরীরে জমা টক্সিন দূর করতে সাহায্য করে হালকা গরম পানি। ঘাম ও প্রস্রাবের পরিমাণ বাড়িয়ে শরীর থেকে দূষিত পদার্থ দূর করতে সাহায্য করে এটি।

৪. গরমের সময় তো বটেই, শীতকালে কোষ্ঠকাঠিন্যের উপদ্রব বেড়ে যায়। নিয়মিত সকালে খালি পেটে হালকা গরম পানি খেলে অন্ত্রের কার্যক্রম স্বাভাবিক থাকে, যা কোষ্ঠ পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে।

৫. ঠাণ্ডা লাগা, বুকে কফ জমে যাওয়া ও গলাব্যথা করলে হালকা গরম পানি খেলে কফ তরল করে বের করে দেয়।

৬. পেশিতে কোনও প্রকার প্রদাহ, ব্যথা থাকলে তা নিরাময় করতে পারে হালকা গরম পানি। পেশি মজবুত করতেও সাহায্য করে হালকা গরম পানি।

৭. মাসের নির্দিষ্ট কয়েকটি দিন ঋতুস্রাবের কষ্টে ভোগেন মেয়েরা। হালকা গরম পানি খেলে সেই সংক্রান্ত সমস্যা দূর হয়। পেটের পেশির নমনীয়তা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে হালকা গরম পানি। ফলে পেটের যন্ত্রণা বা কষ্ট অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.