মাঝপথে অসুস্থ যাত্রী, লন্ডনগামী বিমান নামল বুলগেরিয়ায়

সিলেট থেকে উড়াল দেওয়া আকাশযানে হঠাৎ করে যাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের লন্ডনগামী একটি ফ্লাইট বুলগেরিয়ায় জরুরি অবতরণ করেছে।

উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা দেখা দেওয়া যাত্রীর জীবনরক্ষায় যাত্রাবিরতির সিদ্ধান্ত নেন সংশ্লিষ্ট ফ্লাইটের পাইলট ইশতিয়াক। গত ১ ডিসেম্বর সিলেট থেকে লন্ডনগামী ফ্লাইটে এ ঘটনা ঘটে।

যাত্রীকে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য বিমানটি বুলগেরিয়ার সোফিয়া ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে মেডিকেল ইমার্জেন্সি সিগনাল দিয়ে জরুরি অবতরণ করে। পরে ওই যাত্রীকে চিকিৎসার জন্য বুলগেরিয়ার একটি হাসপাতালে পাঠানো হয়।

জানা জায়, ১ ডিসেম্বর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি ২০১ ফ্লাইটটি সিলেট থেকে লন্ডনের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। ফ্লাইটের মধ্যে ৮৪ বছর বয়সী এক যাত্রীর হঠাৎ উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা দেখা দেয়। ওই যাত্রী সিলেট থেকে লন্ডনে যাচ্ছিলেন। যদিও তার কাছে ‘ফিট টু ফ্লাই’ মেডিকেল সার্টিফিকেট ছিল।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স সূত্র জানায়, কেবিন ক্রুরা ওই যাত্রীর অসুস্থতার বিষয়টি ফ্লাইটের ক্যাপ্টেনকে জানান। ফ্লাইটে পাইলট ইন কমান্ড (পিআইসি) ছিলেন বিমানের প্লানিং অ্যান্ড শিডিউলিং চিফ ক্যাপ্টেন ইশতিয়াক। তিনি ককপিট থেকে ফ্লাইটের মধ্যে কোনো চিকিৎসক আছেন কি না জানতে জরুরি ঘোষণা করেন।

তখন ফ্লাইটে থাকা একজন চিকিৎসক যাত্রী অসুস্থ যাত্রীকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন। ফ্লাইটের মধ্যে অসুস্থ যাত্রীকে নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন দেওয়া হয়। একই সঙ্গে ওই চিকিৎসকের পরামর্শে অন্য প্রয়োজনীয় ওষুধ দেওয়া হয়। এরপরও তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। তখন চিকিৎসক ক্যাপ্টেনকে জানান, অসুস্থ যাত্রীকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দিতে হবে।

তখন ক্যাপ্টেন ইশতিয়াক যাত্রীর জীবন রক্ষার্থে ফ্লাইটটি বুলগেরিয়ার রাজধানী সোফিয়াতে অবস্থিত সোফিয়া ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে মেডিকেল ইমার্জেন্সি ঘোষণা করে জরুরি অবতরণ করান। পরে অন্য যাত্রীদের নিয়ে বিমানের ওই ফ্লাইট ৩ ঘণ্টা পর লন্ডনের হিথরো এয়ারপোর্টে পৌঁছায়।

উল্লেখ্য, ফ্লাইটে সেকেন্ড ক্যাপ্টেন ছিলেন বিমানের চিফ অব ফ্লাইট সেইফটি ক্যাপ্টেন এনাম এবং ফার্স্ট অফিসার ছিলেন ইশতি।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.