ভোটের দিনসহ ৪৮ ঘণ্টার হরতাল ডেকেছে বিএনপি

আগামী শনি ও  রোববার (ভোটের দিন)  হরতাল ডেকেছে বিএনপি। একই সঙ্গে আগামীকাল শুক্রবার মিছিল ও গণসংযোগ কর্মসূচি পালন করবে দলটি।

আজ বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) বিকেলে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এসব কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

সরকারের পদত্যাগ ও নির্বাচনকালীন নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থার পুনঃপ্রতিষ্ঠার একদফা দাবি এবং নির্বাচন বর্জন ও অসহযোগ আন্দোলনের পক্ষে এসব কর্মসূচি দিয়েছে দলটি। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ আগামী রোববার ৭ই জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচন প্রত্যাখান করে কয়েকদিন ধরে ভোট বর্জনের আহ্বান জানিয়ে হরতাল, অবরোধ, প্রচারপত্র বিলি ও গণসংযোগসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি ও সমমনা দলগুলো। এর ধারাবাহিকতায় আজ ভোটে আগের দিন ও ভোটের দিন হরতাল ঘোষণা করেছে দলটি।

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, ‘৬ ডিসেম্বর সকাল ৬টা থেকে ৮ ডিসেম্বর সকাল ৬টা পর্যন্ত দেশব্যাপী ৪৮ ঘণ্টা হরতাল পালন করা হবে।’ তিনি বলেন, আমরা আগামী ৭ জানুয়ারি প্রহসনের সংসদ নির্বাচন বর্জন করতে দেশবাসী ও সম্মানিত ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানাই।

একতরফা নির্বাচনে সরকার নিজেরা পরিকল্পিতভাবে সহিংসতা ঘটিয়ে বিএনপি ও বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের ওপর দোষ চাপাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন রিজভী। তিনি বলেন, গণতন্ত্র মঞ্চ ও গণঅধিকার পরিষদের কর্মসূচিতে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা হামলা করেছে। এছাড়া সারা দেশে বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর সরকারের সন্ত্রাসী বাহিনী প্রতিনিয়ত হামলা করছে। আমি বিএনপির পক্ষ থেকে এসব হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

এদিকে বিএনপির সমর্থনে আগামী ৬ ও ৭ জানুয়ারি দেশব্যাপী সর্বাত্মক হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) প্রেসিডেন্ট কর্নেল (অব.) অলি আহমদ। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতির মাধ্যমে এ ঘোষণা দিয়ে দলের নেতাকর্মী ও দেশবাসীকে হরতাল পালনের আহ্বান জানান তিনি। এছাড়া ৫ জানুয়ারি সারা দেশে লিফলেট বিতরণ করবে এলডিপি নেতাকর্মীরা।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.