যুক্তরাষ্ট্রের হ্যাম্পশায়ারে প্রাথমিক নির্বাচনে ট্রাম্পের জয়

যুক্তরাষ্ট্রে ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী বাছাইয়ে প্রাইমারির ভোটে নিউ হ্যাম্পশায়ার জয় পেয়েছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প।

এডিসন রিসার্চের প্রদর্শিত ফলে এমনটি দেখা গেছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত এ প্রাইমারিতে ট্রাম্প তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালিকে পরাজিত করেছেন।

এই জয়ের মাধ্যমে ট্রাম্প নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্র্যাটিক দলীয় প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে ফের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামার পথে অনেকটা এগিয়ে গেলেন। রিপাবলিকান দলীয় প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার পথে ট্রাম্পের অবস্থান আরও দৃঢ় হয়েছে।

হারলেও সাউথ ক্যারোলাইনার সাবেক গভর্নর হ্যালি লড়াই চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করে বলেছেন, “আমি একজন যোদ্ধা। এই প্রতিযোগিতা শেষ হতে এখনও অনেকটা বাকি।”

অপরদিকে নিজের সমর্থকদের সামনে দেওয়া এক বক্তৃতায় ট্রাম্প তার স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে হ্যালিকে উপহাস করেছেন, তাকে ‘প্রতারক’ বলেছেন।

ট্রাম্প বলেছেন, “তিনি এমন করছেন, এমনভাবে কথা বলছেন যেন তিনি জিতেছেন। তিনি জিতেননি। তিনি হেরেছেন। তার জন্য খুব খারাপ একটি রাত ছিল।”

এসব মন্তব্যের পর নিজের সামাজিক মাধ্যম অ্যাপ ‘ট্রুথ সোশ্যাল’ এ বেশ কয়েকটি পোস্টে ট্রাম্পের ক্ষুব্ধতা প্রকাশ পায়, এর একটিতে হ্যালিকে ‘বিভ্রান্তিকর’ বলে উল্লেখ করেন তিনি।

নিউ হ্যাম্পশায়ারে উল্লেখযোগ্য ভাসমান ভোটার থাকায় হ্যালি আশা করেছিলেন তাদের ভোট এখানে তাকে জয় পেতে সাহায্য করবে আর এর মাধ্যমে রিপাবলিকান দলের ওপর ট্রাম্পের বজ্রমুষ্ঠি আলগা করতে পারবেন তিনি।

 

কিন্তু তার বদলে ১৯৭৬ সালের পর থেকে প্রথম রিপাবলিকান হিসেবে আইওয়ার পাশাপাশি নিউ হ্যাম্পশায়ারেও জয় পেতে যাচ্ছেন ট্রাম্প। আট দিন আগে আইওয়া প্রাইমারিতে রেকর্ড ব্যবধানে জয় পেয়েছিলেন তিনি।

বিবিসি জানিয়েছে, নিউ হ্যাম্পশায়ারে ৭০ শতাংশ ভোট গণনার পর দেখা গেছে ট্রাম্প হ্যালির চেয়ে ১০ পয়েন্ট ব্যবধানে এগিয়ে আছেন। ট্রাম্প পেয়েছেন ৫৪ দশমিক ৪ শতাংশ ভোট আর হ্যালি ৪৩ দশমিক ৬ শতাংশ। এখানে সম্ভাব্য জয়ী হিসেবে ট্রাম্পকেই দেখানো হচ্ছে।

এরপর রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী বাছাইয়ে পরবর্তী প্রাইমারির ভোট হবে ২৪ ফেব্রুয়ারি সাউথ ক্যারোলাইনায়। এখানেই হ্যালির জন্ম হয়েছিল আর তিনি দুই মেয়াদে এ অঙ্গরাজ্যের গভর্নর ছিলেন। এসব সত্ত্বেও বিভিন্ন জনমত জরিপে দেখা গেছে, ট্রাম্প এ অঙ্গরাজ্যেও অনেক ব্যবধানে এগিয়ে আছেন।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.