রাইসির মৃত্যুতে নিরাপত্তা পরিষদে নীরবতা পালন

হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ান ও তার সফরসঙ্গীদের স্মরণে সোমবার (২০ মে) এক মিনিট নীরবতা পালন করেছেন জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা। আর এতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন জাতিসংঘে ইসরায়েলের স্থায়ী দূত গিলাদ এরদান। ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আইআরএনএ এ খবর জানিয়েছে।

জাতিসংঘে মোজাম্বিকের রাষ্ট্রদূত পেদ্রো কমিসারিও আফনসো মে মাসের জন্য নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তার আহ্বানে অধিবেশনের শুরুতেই নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন।

কিন্তু এতে ভীষণ বিরক্ত ও ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন ইসরায়েলি রাষ্ট্রদূত গিলাদ এরদান। সদস্যদের উদ্দেশে তিনি প্রশ্ন করেন, নিরাপত্তা পরিষদের পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে? তাদের মৃত্যু বার্ষিকীতেও এক মিনিট নীরবতা পালন?

এর আগেও, ইসরায়েল-বিরোধী জাতিসংঘের সদস্যদের প্রতি হিংস্র আচরণ করেছেন এরদান। গাজায় ইসরায়েলি অভিযান শুরুর পর থেকেই, নিরাপত্তা পরিষদ বিশ্ব শান্তির জন্য হুমকি হয়ে উঠছে বলে দাবি করেছেন তিনি।

নীরবতা পালনের বিনিময়ে সাধারণ পরিষদের পাবলিক হলে কয়েক সেকেন্ডের জন্য রাইসির বিরুদ্ধে প্ল্যাকার্ডও ধরেছিলেন এরদান।

আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি কর্তৃপক্ষের প্রধান রাফায়েল গ্রসিও রাইসির মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন। ভিয়েনায় পারমাণবিক নিরাপত্তা সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে এক মিনিট নীরবতা পালনের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

রাইসি ও তার সফরসঙ্গীদের মৃত্যুতে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস শোকাহত বলে জানিয়েছেন তার মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিখ।

রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি রবিবার দুপুরের দিকে ইরানের পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের পর্বতঘেরা ভারজাগান এলাকায় বিধ্বস্ত হয়। এতে প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ অন্তত ৯ জন নিহত হয়।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.