যুক্তরাষ্ট্রের পরিকল্পনা নিয়ে রাশিয়া ও চীনের উদ্বেগ

গাজায় যুদ্ধবিরতির জন্য জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যুক্তরাষ্ট্র উত্থাপিত খসড়া প্রস্তাব নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রাশিয়া ও চীন। ইসরায়েল এবং ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের মধ্যে যুদ্ধবিরতির জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন একটি রূপরেখা পরিকল্পনা করেছিলেন। সেটি নিয়েই বৃহস্পতিবার (৬ জুন) উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দেশ দুটি। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে ভেটো দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে রাশিয়া ও চীনের। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এই খবর জানিয়েছে।

কূটনীতিকরা বলেছেন, নিরাপত্তা পরিষদের একমাত্র আরব সদস্যদেশ আলজেরিয়াও খসড়াটিতে সমর্থন দিতে প্রস্তুত না থাকার ইঙ্গিত দিয়েছে। নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাব পাস করতে এর পক্ষে অন্তত নয় ভোট প্রয়োজন। তবে যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, চীন ও রাশিয়া, এই পাঁচ দেশের কোনটি যদি ভেটো দেয় তাহলে তা পাস হবে না।

এক সপ্তাহ আগে, গাজা উপত্যাকায় তিন ধাপের যুদ্ধবিরতি পরিকল্পনার প্রস্তাব করেছিলেন বাইডেন। এটিকে তিনি ইসরায়েলি উদ্যোগ হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন। এই পরিকল্পনাটির জন্য আন্তর্জাতিক সমর্থন চাইছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার ১৫ সদস্যের জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে একটি এক পৃষ্ঠার খসড়া প্রস্তাব পাঠানো হয়। বুধবার এর একটি সংশোধিত সংস্করণও প্রকাশ করা হয়। প্রস্তাবটির দুটি সংস্করণই দেখেছে রয়টার্স।

খসড়াটির বর্তমান সংস্করণে যুদ্ধবিরতি প্রস্তাবকে স্বাগত জানানো হয়েছে। এটি ইসরায়েলের কাছে ‘গ্রহণযোগ্য’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। একইসঙ্গে হামাসকেও খসড়াটি মেনে নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে। উভয় পক্ষকে অনতিবিলম্বে এবং নিঃশর্তে পরিকল্পনার শর্তগুলো সম্পূর্ণরূপে বাস্তবায়ন করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

প্রস্তাবটিতে বলা হয়েছে, প্রথম ধাপের অংশ হিসেবে গাজা উপত্যকায় ‘সম্পূর্ণ যুদ্ধবিরতি’ এবং দ্বিতীয় পর্বে ‘পক্ষগুলোর চুক্তির ভিত্তিতে শত্রুতার স্থায়ী সমাপ্তি’ নিশ্চিত করা হবে।

কূটনীতিকরা বলেছেন, ইসরায়েল আসলেই পরিকল্পনাটি গ্রহণ করেছে কিনা এবং পরিষদে মার্চে উত্থাপন করা প্রস্তাবে গাজায় অবিলম্বে যুদ্ধবিরতি ও সব জিম্মিদের নিঃশর্ত মুক্তির শর্তে তাদের অবস্থানের কোনও পরিবর্তন হয়েছে কি না, এ নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদের কিছু সদস্য প্রশ্ন তুলেছেন।

মার্কিন ওই খসড়াটি সংশোধনের প্রস্তাব করেছিল রাশিয়া। সেটিও রয়টার্স দেখেছিল।  মস্কোর প্রস্তাবটিতেও হামাস এবং ইসরায়েল উভয়কেই তা গ্রহণ করার আহ্বান এবং অবিলম্বে ও নিঃশর্তভাবে একটি স্থায়ী যুদ্ধবিরতির দাবি জানানো হয়েছিল।

মস্কো চায় খসড়ায় উল্লেখিত প্রথম ধাপে যুদ্ধবিরতি চলতে চলতেই দ্বিতীয় ধাপের বিষয়ে আলোচনা হোক।

কয়েক মাস ধরেই একটি যুদ্ধবিরতির মধ্যস্থতা করার চেষ্টা করছেন যুক্তরাষ্ট্র, মিসর এবং কাতারের প্রতিনিধিরা। হামাস বলেছে,গাজায় যুদ্ধের স্থায়ী সমাপ্তি এবং সেখান থেকে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর সম্পূর্ণ প্রত্যাহার চায় তারা।

গত ৭ অক্টোবর থেকে গাজায় ইসরায়েলি বাহিনীর আগ্রাসনে অন্তত ৩৬ হাজার ৬৫৪ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। আর হামাসের হামলায় নিহত হয়েছে এক হাজার ১৩৯ ইসরায়েলি।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.