ইরানে যৌথ বিনিয়োগে সার কারখানা করতে চায় বাংলাদেশ

bd-iran20161003164127বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ বিনিয়োগে ইরানে একটি ইউরিয়া সার কারখানা স্থাপনের আগ্রহ প্রকাশ করেছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। ইরানে সফররত শিল্পমন্ত্রী ইস্পাহান প্রদেশের গভর্নর জেনারেল রাসূল জারগাপুরের সঙ্গে বৈঠককালে এ আগ্রহের কথা জানান। সোমবার গভর্নর জেনারেলের দফতরে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, ইউরিয়া সার কারখানা স্থাপনের প্রকল্পে প্রয়োজনে দু’দেশের পাশাপাশি তৃতীয় অংশীদার হিসেবে বিশ্বের কোনো খ্যাতনামা কোম্পানিকে যুক্ত করা যেতে পারে। এছাড়া এ কারখানা স্থাপনে ইরানের চাবাহার সমুদ্র বন্দরের নিকটবর্তী শিল্প অঞ্চলে জমি বরাদ্দের বিষয়টি বিবেচনার জন্য ইরান সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তিনি।

বৈঠকে শিল্পমন্ত্রী ইরানের সঙ্গে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশ এবং ইরানের জনগণের মধ্যে কৃষ্টি-সংস্কৃতি, খাদ্যাভাস, ধর্মীয় মূল্যবোধসহ অনেক ক্ষেত্রেই মিল রয়েছে। ১৯৯৭ সালে ইরানে অনুষ্ঠিত ওআইসি সম্মেলন এবং ২০১২ সালের জোট নিরপেক্ষ সম্মেলন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ইরান সফর দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে।

দু’দেশের শিল্পায়ন ও বিনিয়োগে সরকারি ও বেসরকারি খাতের অংশীদারিত্ব বাড়িয়ে অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদারের উপর গুরুত্ব দেন শিল্পমন্ত্রী।

আমু বলেন, বাংলাদেশ সরকার সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে উদারনীতি গ্রহণ করেছে। বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য স্পেশাল ইনসেনটিভ প্রদানের পাশাপাশি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হচ্ছে। এসব অর্থনৈতিক অঞ্চলে ইরানের উদ্যোক্তারা বিনিয়োগে এগিয়ে আসতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এছাড়া বাংলাদেশের সার কারখানারগুলোর জন্য অ্যামোনিয়া গ্যাস পরিবহন করতে ইরান থেকে রেলওয়ে ওয়াগন আমদানির আগ্রহ প্রকাশ করেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, দ্বিপাক্ষিক উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির স্বার্থে এ সম্পর্ক আরো জোরদার করতে হবে। জ্বালানি, পেট্রো-কেমিক্যাল, শিল্প, সংস্কৃতি, শিক্ষা, পরিবহন ও যোগাযোগখাতে ইরানের দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা বাংলাদেশের উন্নয়নে কাজে লাগবে বলে অভিমত প্রকাশ করেন মন্ত্রী।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.