আলাস্কায় নতুন তেলক্ষেত্র আবিষ্কার, মজুদ বাড়লো ৮০%

base_1475742314-alaska-oil-pipelineযুক্তরাষ্ট্রের দূরবর্তী ও দুর্গম অঙ্গরাজ্য আলাস্কায় এযাবত কালের সবচেয়ে বড় তেলখনির সন্ধান পাওয়া গেছে। মার্কিন জ্বালানি অনুসন্ধান কোম্পানি সেলাস ইনার্জি এলএলসি আলাস্কার উত্তর ঢালের এই খনি আবিষ্কার করেছে। এই আবিষ্কারের ফলে অঙ্গরাজ্যটির মোট তেলের মজুদ ৮০ শতাংশ বেড়ে গেল।

তেলক্ষেত্রটি মূলত স্মিথ বে এলাকায় অবস্থিত। এই এলাকাটি আলাস্কার উত্তরাঞ্চলীয় শহর ব্যারোর কাছাকাছি সুমেরু বৃত্ত থেকে ৩০ মাইল উত্তরে। সেলাস দাবি করছে, এই তেলক্ষেত্রে ৬শ কোটি ব্যারেল তেল রয়েছে। ফলে এর পার্শ্ববর্তী তেলক্ষেত্রটির সঙ্গে মিলিয়ে মোট পরিমাণ দাঁড়াবে এক হাজার কোটি ব্যারেলেরও বেশি। কোম্পানিটি আশা করছে, তারা এর ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ উত্তোলন করতে সক্ষম হবে।

১৯৮৮ সালে আলাস্কা থেকে দৈনিক সর্বোচ্চ পরিমাণ (২০ লাখ ব্যারেল) তেল উত্তোলন করা হতো। এর বেশিরভাগ তেলই আসতো প্রুধো বে থেকে। অবশ্য ২০১৫ সালে এসে এই উৎপাদন কমে এক চতুথাংশ হয়েছে। নতুন খনি আবিষ্কৃত হওয়ায় আবার উৎপাদন বেড়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

তবে নতুন আবিষ্কৃত এলাকা থেকে তেল উৎপাদন সম্প্রতি আবিষ্কৃত ক্ষেত্রগুলো থেকে চ্যালেঞ্জিং হবে। যদিও সুমেরু অঞ্চলে আলাস্কার চুকচি সাগরে শেলের পরিত্যক্ত প্রকল্পের চেয়ে এখানে যাতায়াত কিছুটা সহজ।

কারণ স্মিথ বে এর ওই নতুন তেলক্ষেত্রটি অগভীর পানিতে এবং ভূমির কাছাকাছিই। ফলে চুকচি সাগর থেকে এখানে যাওয়া সহজ হবে। সেলাস বলছে, তারা যাতায়াতের সুবিধার জন্য স্মিথ বে এর কাছকাছি পানিতে একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করবে।

এছাড়া প্রুধো বে এর উপর ট্রান্স আলাস্কান পাইপলাইন সিস্টেমের সঙ্গে স্মিথ বে’কে যুক্ত করতে ৮শ মাইল দীর্ঘ পাইপলাইন বসাবে তারা।

তবে তেল উত্তোলন শুরু হতে এখনো পাচ থেকে দশ বছর সময় লাগবে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.