সিয়াটল সাউথ এশিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ফোকাসে বাংলাদেশ

seattle-sm20161015120744সিয়াটল সাউথ এশিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ১১তম আসরে বিশেষ ফোকাসে রয়েছে বাংলাদেশি ছবি। সিয়াটলের বিভিন্ন স্থানে ১৪ অক্টোবর শুরু হওয়া এ আয়োজন চলবে ২৩ অক্টোবর পর্যন্ত।

‘ভালোবাসা জয়ী’ ভাবনা নিয়ে সাজানো উৎসবটিতে ২৩টি পূর্ণদৈর্ঘ্য কাহিনিচিত্র ও ২২টি স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি স্থান পেয়েছে। এর মধ্যে উদ্বোধনী ছবি ছিলো অমিতাভ রেজা চৌধুরী পরিচালিত ‘আয়নাবাজি’। এর গল্প অভিনয় পাগল মানুষ শরাফত করিম আয়নাকে ঘিরে। ইচ্ছেমতো যে কোনো মানুষের চরিত্রে রূপ বদলে ফেলতে তার জুড়ি নেই। অভিনয়ের নেশায় সাজাপ্রাপ্ত আসামীদের ছদ্মবেশে জেল খাটে সে। সঙ্গে টাকাও আসে ভালো। আয়না চরিত্রে ছয়টি ভিন্ন রূপে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী। সিয়াটল আর্ট মিউজিয়ামে অনুষ্ঠিত ছবিটির প্রদর্শনীতে ছিলেন তিনি। আরও ছিলেন প্রযোজক জিয়াউদ্দিন আদিল।

বাংলাদেশ থেকে মনোনীত হয়েছে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘পিঁপড়াবিদ্যা’। এ ছাড়াও উৎসবে আছে আফগানিস্তান, ভূটান, ভারত, মালদ্বীপ, নেপাল, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার চলচ্চিত্র। এগুলোর প্রদর্শনী হচ্ছে সিয়াটল এশিয়ান আর্ট মিউজিয়াম, স্ট্রাউম জুইশ কমিউনিটি সেন্টার, এসআইএফএফ ফিল্ম সেন্টার, সার্কো থিয়েটার, ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটন’স থম্পসন হলে।

দক্ষিণ এশিয়ায় সংখ্যালঘু নিপীড়ন, মানবাধিকার ও সামাজিক ন্যায়বিচার ইস্যুর দিকে আলোকপাত করতেই এ উৎসব আয়োজন করেছে অলাভজনক শিল্প সংগঠন তাসভীর। আগামী ১৮ অক্টোবর দক্ষিণ এশীয় চলচ্চিত্র ও শিল্পকলায় বর্ণবাদ, যৌন আবেদন ও সেন্সরশিপ বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেবেন নির্মাতা ও বিশেষজ্ঞরা।

তাসভীরের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক রিটা মেহের বলেছেন, ‘বাংলাদেশে এখন মানবাধিকার ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রচন্ড সংগ্রামের মুখে। তাই বাংলাদেশিরা তাদের নিজেদের গল্প ও ভবিষ্যৎ স্বপ্নের কথা বলে এগিয়ে যেতে পারে এমন একটি প্ল্যাটফর্ম প্রয়োজন। সেজন্যই এবার আমাদের ফোকাসে বাংলাদেশ।’

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.