কঙ্গনার বাড়ির সমানে করনি সেনার বিক্ষোভ

কঙ্গনার বাড়ির সমানে করনি সেনার বিক্ষোভ।

কঙ্গনা রানাওয়াতের ‘মনিকর্নিকা’ মুক্তি পেতেই সাড়া ফেলে দিয়েছে। ঘোড়ায় বসা কঙ্গনার পেছনে একটি বাচ্চা মেয়ে। যাকে পিঠে বেঁধে লড়াইয়ের ময়দানে নেমেছেন রানি লক্ষ্মীবাই রূপী কঙ্গনা।
তার চোখে, মুখে রয়েছে যুদ্ধজয় করার খিদে। সামনে কোটি কোটি শত্রু ধেয়ে এলেও এক নিমেষে খতম করার রোষ নিয়েও ঘোড়া ছুটিয়ে চলেছে সে। তা থেকেই যেন ঝড়ে পড়ছে অসংখ্য গল্প। পাশাপাশি ট্রেলার ব্যাকগ্রাউন্ডে অমিতাভের ব্যারিটন ভয়েজ। কঙ্গনার অভিনয়, রূপ আর তেজ। চমকের পর চমক।
‘মনিকর্ণিকা’য় ইতিমধ্যেই মুগ্ধ সিনেপ্রেমীরা। কখনও সন্তান কোলে রাজ্য শাসন। কখনও ঘোড়ায় চড়ে যুদ্ধ যাত্রা। তো কখনও তলোয়াড় হাতে শত্রুদের রক্তস্নানে মত্ত কঙ্গনা। যা দেখে সবাই বাহবা দিচ্ছেন কঙ্গনার। তবে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছে রাজপুতের করনি সেনা।

ছবি মুক্তির আগেই শুরু হয়ে গিয়েছিল করনি সেনার দাপট। ট্রেলার, টিজার কিংবা পোস্টারে দর্শকের কিছু আপত্তিজনক না লাগলেও করনি সেনা চায় না তাদের রানী লক্ষ্মীবাইকে নিয়ে বলিউড কাটাছেড়া করুক। এর আগেও কঙ্গনার এই ছবির শুটিং চলাকালীন নানা সমস্যার সৃষ্টি করেছিল তারা।
তাদের মতে ছবিতে রানী লক্ষ্মীবাইয়ের ভুল চরিত্রায়ন করা হয়েছে। অন্যদিকে পরিচালক রাধা কৃষ্ণ জগরলামুড়ির এই ছবিকে চারজন ইতিহাসবিদ এবং সেনসর বোর্ড সার্টিফায়েড করে দিয়েছে। কঙ্গনা সম্প্রতি জানিয়েছেন রাজপুতের করনি সেনা তাকে এখনও হেনস্তা করে চলেছে।
নায়িকা জানিয়েছিলেন, ‘এর পর যদি ওরা আমায় হেনস্তা করা বন্ধ না করে, তাহলে ওদের জেনে রাখা ভালো আমিও একজন রাজপুত। এক একজনকে ধ্বংস করে দেব।’ সেই নিয়ে করনি সেনারা দাবি করেছিল কঙ্গনার ক্ষমার। ক্ষমা চাইতে কঙ্গনা রাজি না হওয়ায় নায়িকার বাড়ির সামনে বিক্ষোভ চলে।
অভিনেত্রীর পালি হিলের বাড়ির সামনে ছয় জন করনি সেনা এসে বিক্ষোভ চালাতে থাকে। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হলে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.