যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ অস্বীকার করল হুয়াওয়ে

যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ অস্বীকার করল হুয়াওয়ে।

চীনা টেলিকম জায়ান্ট হুয়াওয়ে তাদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের আনা অপরাধের অভিযোগ অস্বীকার করেছে এবং ভুল কোনো কিছু করেনি বলে দাবি করেছে।
হুয়াওয়ে এবং কানাডায় গ্রেপ্তার হওয়া হুয়াওয়ে কর্মকর্তা মেং ওয়ানঝুর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপরাধের অভিযোগে মামলা করার কথা সোমবার ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

অভিযোগগুলোর মধ্যে ব্যাংক জালিয়াতি, নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে ইরানের সঙ্গে ব্যবসা, বিচারে বাধা দেওয়া, প্রযুক্তি চুরির অভিযোগও আছে।

মেং ওয়াংঝুর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলোও হুয়াওয়ে অস্বীকার করেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। এক বিবৃতিতে হুয়াওয়ে বলেছে, আজ কোম্পানির কিরুদ্ধে এ সমস্ত অভিযোগ আনার কথা জানতে পেরে তারা হতাশ।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে যে সমস্ত অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে তার কোনোটিই কোম্পানি করেনি। আর কর্মকর্তা মেংও ভুল কোনোকিছু করেছেন বলে তাদের জানা নেই।

সোমবার মার্কিন বিচার বিভাগ হুয়াওয়ে ও এর প্রধান অর্থনৈতিক কর্মকর্তা মেং ওয়ানঝুর বিরুদ্ধে গোপনে একটি সহযোগী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তেহরানের সঙ্গে ব্যবসা ও এসব তথ্য লুকিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ইরান নিষেধাজ্ঞা লংঘন ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনেছে।

চীনা এ টেলিকম জায়ান্ট মার্কিন টি-মোবাইল কোম্পানির কাছ থেকে রোবোটিক বিষয়ক প্রযুক্তি চুরি করেছে বলেও আরেকটি অভিযোগে জানিয়েছে তারা। হুয়াওয়ে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

যুক্তরাষ্ট্র সব মিলিয়ে হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে ২৩ টি অপরাধের অভিযোগ এনেছে। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই পরিচালক ক্রিস্টোফার হুয়াওয়ে কে যুক্তরাষ্ট্রের ‘অর্থনীতি এবং জাতীয় নিরাপত্তা’ দু’য়ের জন্যই হুমকি বলে বর্ণনা করেছেন।

ওদিকে, চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে সরকারের মুখপাত্র গেং শুয়াং যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপকে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ এবং চীনের নির্দিষ্ট কয়েকটি কোম্পানিকে দমন করার চেষ্টা বলে অভিহিত করেছেন। তিনি চীনা এন্টারপ্রাইজগুলোর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রকে সঠিক এবং ন্যায়সঙ্গত আচরণ করার আহ্বান জানান।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.