আদনানের পদ্মশ্রীতে ক্ষোভ বিশ্ব হিন্দু পরিষদ সভাপতির

আদনানের পদ্মশ্রীতে ক্ষোভ বিশ্ব হিন্দু পরিষদ সভাপতির।

পাকিস্তানি বিমান বাহিনী অফিসারের ছেলে আদনান সামিকে ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা ‘পদ্মশ্রী’ পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে, যেটি নেমে নিতে পারছেন না বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সভাপতি প্রবীণ তোগাড়িয়া।

এ নিয়ে ব্যাপক ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছেন তোগাড়িয়া। তিনি বলেন, পাকিস্তানের একজন বায়ুসেনা অফিসারের ছেলেকে কেনো পদ্মশ্রী প্রদান করা হলো? আদনান সামিকে পদ্মশ্রী দেওয়া মানে ভারতের শহিদদের অপমান। কারণ কার্গিল যুদ্ধে ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে হামলা চালান আদনান সামির বাবা।

বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক আদনান সামির পদ্মশ্রী নিয়ে বিশ্ব হিন্দু পরিষেদের পাশাপাশি ক্ষোভ প্রকাশ করতে শুরু করেছে কংগ্রেসও।

রাজনৈতিক দল এবং বিভিন্ন সংগঠনের বিক্ষোভের পর এবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন আদনান নিজে। তিনি জানান, তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই। পাশাপাশি তিনি কোনো রাজনৈতিক দলের সদস্যও নন। তিনি একজন শিল্পী। যে রাজনৈতিক নেতা সকালে তার বিরোধিতা করছেন, তিনিই বিকেলে এককাপ চা হাতে নিয়ে তার গান শুনতে বসেন। একজন শিল্পী হিসেবে ভালোবাসা ছড়িয়ে দেওয়াই তার কাজ বলেও মন্তব্য করেন আদনান সামি। পাশাপাশি নিজেদের সুবিধার জন্য তার নামকে সুপরিকল্পিতভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন বলিউডের জনপ্রিয় এই গায়ক।

শুধু তাই নয়, ৩৪ বছরের ক্যারিযারে ২০ বছর তিনি বলিউডকে দিয়েছেন। তার ২০ বছরের কর্মজীবনে পাকিস্তানের কোনো জায়গা নেই বলেও দাবি করেন আদনান।

২০১৫ সালে আদনান সামির পাকিস্তানের পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। এরপরই ভারতীয় নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করেন তিনি। আবেদনের এক বছরের মধ্যেই অর্থাৎ ২০১৬ সালেই আদনান সামিকে ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হয়।

আরও খবর
আপনার কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published.